অর্থনীতি

আন্তর্জাতিক

সিঙ্গাপুরে হতে পারে ট্রাম্প-কিমের যুগান্তকারী বৈঠক

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন আগামী মাসে সিঙ্গাপুরে বৈঠকে বসতে পারেন। এ দুই নেতার মধ্যে নজিরবিহীন আলোচনার প্রত্যাশা তৈরী হওয়ার প্রেক্ষাপটে এমন ধারণা করা হচ্ছে। খবর এএফপি’র। বিস্তারিত উল্লেখ না করে সপ্তাহান্তে ট্রাম্প বলেন, উভয় পক্ষ যুগান্তকারী এ বৈঠকের তারিখ ও স্থান নির্ধারণ করেছে। আর এটি হবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও উত্তর কোরিয়ার নেতার মধ্যে প্রথম বৈঠক। ট্রাম্প সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা শিগগিরই এ বৈঠকের তারিখ ও স্থানের নাম ঘোষণা করবো।’ কূটনৈতিক সূত্রের বরাত দিয়ে সোমবার দক্ষিণ কোরিয়ার চোসান ইলবো দৈনিকের খবরে বলা হয়, এ যুগান্তকারী বৈঠক ‘মধ্য-জুনে’ অনুষ্ঠিত হবে। ওই সংবাদপত্রের খবরে আরো বলা হয়, বৈঠকটি সিঙ্গাপুরে হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশী। এ মাসের শেষের দিকে হোয়াইট হাউসে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইনের সঙ্গে ট্রাম্পের সাক্ষাতের সময়ে এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তবে এ ব্যাপারে বিস্তারিত আর কিছু বলা হয়নি। দক্ষিণ কোরিয়ার সরকারি বার্তা সংস্থা ইয়োনহাপ সপ্তাহান্তে একই ধরনের এটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। ওই প্রতিবেদনেও এ সম্মেলনের সম্ভাব্য স্থানের ক্ষেত্রে সিঙ্গাপুরের নাম উল্লেখ করা হয়।

  • নিষেধাজ্ঞার কারণে প্রতিরক্ষা ব্যয় হ্রাসে বাধ্য হলো রাশিয়া : জরিপ

    রাশিয়ার সামরিক ব্যয় ১৯৯৮ সালের পর প্রথমবারের মতো ২০১৭ সালে অনেক হ্রাস পেয়েছে। মস্কোর বিরুদ্ধে পশ্চিমা দেশগুলোর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের কারণে সরকারি কোষাগারে ঘাটতি দেখা দেয়ায় এ ব্যয় হ্রাস করা হয়। এক জরিপ থেকে বুধবার এ তথ্য জানা গেছে। খবর এএফপি’র। স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিচ রিসার্চ ইনস্টিটিউট (এসআইপিআরআই) জানায়, মস্কো ও পশ্চিমা দেশগুলোর মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে গত বছর রাশিয়ার সামরিক ব্যয় ছিল ৬৬.৩ বিলিয়ন ডলার। পূর্ববর্তী ২০১৬ সালের তুলনায় এ ব্যয় ২০ শতাংশ কম। খবরে বলা হয়, ব্যাপক আর্থিক সংকটের মুখে মস্কো এর আগে ১৯৯৮ সালে তাদের দেশের সামরিক ব্যয় হ্রাস করে। ইউক্রেনের ক্রিমিয়া উপদ্বীপের অন্তর্ভূক্তি প্রশ্নে রাশিয়ার বিরুদ্ধে পশ্চিমা দেশগুলোর অবরোধ আরোপের কথা উল্লেখ করে এসআইপিআরআই’র সিনিয়র গবেষক সিমন ওয়েজমান বলেন, ‘রাশিয়া সামরিক বাহিনীর আধুনিকায়নের বিষয়ে অগ্রাধিকার দেওয়া বজায় রাখলেও আর্থিক সমস্যার কারণে সামরিক বাজেট কাটছাট করছে। ২০১৪ সাল থেকে দেশটি এই সংকট মোকাবেলা করছে।

  • উ. কোরিয়ার পরমাণু পরীক্ষা কেন্দ্র বন্ধ যাচাইয়ে জাতিসংঘের সহযোগিতা চেয়েছেন মুন

    উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক পরীক্ষা কেন্দ্র বন্ধের পরিকল্পনা যাচাই করতে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন জাতিসংঘের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন। মঙ্গলবার জাতিসংঘ মুখপাত্র একথা জানিয়েছেন। খবর এএফপি’র। মুন সোমবার জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেসকে ফোন করে এ অনুরোধ জানান। উত্তর কোরিয়া আগামী মে মাসে তাদের পারমাণবিক পরীক্ষা কেন্দ্র বন্ধ করে দেয়ার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন এমন কথা দেশটির নেতা কিম জং উন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টকে বলার মাত্র কয়েকদিন পর তিনি এ আহবান জানালেন। জাতিসংঘ মুখপাত্র স্টিফান দুজারিক বলেন, ডিপিআরকে’র চেয়ারমেন কিম জং উনের ঘোষণা অনুযায়ী দেশটির পারমাণবিক পরীক্ষা কেন্দ্র দ্রুত বন্ধের পরিকল্পনা যাচাই করতে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট জাতিসংঘের সহযোগিতা চেয়েছেন। উত্তর কোরিয়ার সরকারি নাম হচ্ছে ডেমোক্রেটিক পিপলস রিপাবলিক অব কোরিয়া (ডিপিআরকে)। তিনি আরো বলেন, মুন দুই কোরিয়ার মধ্যে নতুন করে একটি ডিমিলিটাইজড জোন প্রতিষ্ঠায় জাতিসংঘের সহায়তা চেয়েছেন। এদিকে গুতেরেস বলেছেন, জাতিসংঘ সম্ভাব্য সহযোগিতার ধরন নিয়ে আলোচনা করতে প্রস্তুত রয়েছে। তবে এ ব্যাপারে বিস্তারিত আর কিছু বলা হয়নি। এ ধরনের যাচাই মিশন কার্যক্রম চালাতে ভিয়েনা ভিত্তিক আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি সংস্থার (আইএইএ) বিশেষজ্ঞরা রয়েছেন। উল্লেখ্য, গত বছর উত্তর কোরিয়া তাদের ষষ্ট পারমাণবিক পরীক্ষা চালানোয় এবং একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র উক্ষেপণ করায় জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ পিয়ংইয়ংয়ের বিরুদ্ধে কঠোর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে।

  • কাবুলে সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের

    জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ সোমবার আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে রোববারের হামলাকে ‘নৃশংস ও কাপুরুষোচিত সন্ত্রাসী হামলা’ উল্লেখ করে এর তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। খবর সিনহুয়া’র। ওই হামলায় ৬০ জনের বেশি লোক প্রাণ হারিয়েছে। নিরাপত্তা পরিষদ এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা এই হামলায় নিহতদের পরিবারের সদস্য ও আফগান সরকারের প্রতি গভীর সহানুভূতি প্রকাশ করছে। তারা এই হামলায় আহতদের দ্রুত ও সম্পূর্ণ সুস্থতা কামনা করছে।’ বিবৃতিতে আরো বলা হয়, যে কোন ধরনের সন্ত্রাস আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য বড় ধরনের হুমকি। রোববারের ওই আত্মঘাতী বোমা হামলায় ২৭ নারী ও ৮ শিশুসহ ৬০ জনের বেশি লোক প্রাণ হারায়। একটি ভোট নিবন্ধন কেন্দ্রে এ হামলা চালানো হয়।  

শিক্ষাঙ্গন

ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মাসুম ইকবালের পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মাসুম ইকবাল সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন। গত ৩০ এপ্রিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভার আদেশক্রমে বিজনেস স্টাডিস অনুষদের অন্তর্গত ব্যাংকিং অ্যান্ড ইন্স্যুরেন্স বিভাগের অধীনে মুহাম্মদ মাসুম ইকবালকে পিএইচডি ডিগ্রি প্রদান করা হয়। ড. মাসুম ইকবাল ‘কাস্টমার রিলেশনশিপ ম্যানেজমেন্ট ইন ফিনান্সিয়াল সার্ভিস : এ স্টাডি অন সাম সিলেক্টেড প্রাইভেট কমার্সিয়াল ব্যাংকস ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক অভিসন্দর্ভের জন্য এ ডিগ্রি অর্জন করেন।ড. মুহাম্মদ মাসুম ইকবাল চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলাধীন গাজীপুর গ্রামের গাজীপুর মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয় ও গাজীপুর সিনিয়র মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা মরহুম মুসলিম সওদাগরের নাতি এবং ইদ্রিস সওদাগরের জ্যেষ্ঠ পুত্র। ড. মাসুম ইকবাল ১৯৯০ সালে গাজীপুর মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস এস সি, ১৯৯২ সালে চাঁদপুর সরকারি কলেজ থেকে এইচ এস সি পাশ করেন। ১৯৯৬ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মার্কেটিং এ ¯œাতক এবং ২০০১ সালে একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম বি এ পাশ করেন। বর্তমানে তিনি ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ব্যাবসায় ও অর্থনীতি অনুষদের সহযোগী অধ্যাপক ও সহযোগী ডিন হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। 

  • ২১তম ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন অন স্টুডেন্টস কোয়ালিটি কন্ট্রোল সার্কেল-২০১৮ শুরু

    ‘বৈশ্বিক শান্তি ও টেকসই উন্নয়নের জন্য মানসম্মত শিক্ষা’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আগামীকাল ৩ মে (বৃহস্পতিবার) থেকে ড্যাফোডিল ইন্টান্যাশনাল ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাস আশুলিয়ায় শুরু হবে ৪ দিন ব্যাপী ২১তম ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন অন স্টুডেন্টস কোয়ালিটি কন্ট্রোল সার্কেল-২০১৮ (আইসিএসকিউসিসি-২০১৮)। বাংলাদেশ সোসাইটি ফর টোটাল কোয়ালিটি ম্যানেজমেন্ট (বিএসটিকিউএম)-এর উদ্যোগে এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সহযোগিতায় বাংলাদেশে এ আন্তর্জাতিক কনভেনশন জলবে আগামী ৬ মে পর্যন্ত। কনভেনশনে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অষ্ট্রেলিয়া, ভারত, শ্রীলংকা, নেপাল, পাকিস্তান ও মোরিশাসের ৫০০ শিক্ষার্থীসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মোট ১ হাজার শিক্ষার্থী ও প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করছে।আগামীকাল ৩ মে ২০১৮ তারিখে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাস আশুলিয়ায় বর্ণাঢ্য এ আয়োজনের উদ্বোধন করবেন শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ, এম পি ও ৫ মে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। এই আন্তর্জাতিক কনভেনশনে প্রায় ৬০টি স্টুডেন্টস কোয়ালিটি কন্ট্রোল সার্কেলের কেস স্টাডি ও শিক্ষাক্ষেত্রে গুণগত মানবিষয়ক ১৩টি প্রবন্ধ উপস্থাপন করা হবে। এছাড়াও ৪৩টি দল পোস্টার ও শ্লোগান, ৩৯টি দল কোলাজ, ২৯টি দল স্কিট, ৩৩টি দল বিতর্ক, ২৮টি দল কোয়ালিটি ক্ইুজ এবং ১৬টি দল কম্পিউটার প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবেন।কনভেনশনের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে শিক্ষার্থীদের মাঝে টোটাল কোয়ালিটি ম্যানেজমেন্ট সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানো ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গুণগত মানোন্নয়ন ও আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির সর্বশেষ উন্নয়ন সম্পর্কে অবহিত করার পাশাপাশি শিক্ষা প্রতিষ্টান সমূহে টোটাল কোয়ালিটি ম্যানেজমেন্ট বাস্তবায়নের বিভিন্ন বিষয় বিনিময় করা।

  • গোপালগঞ্জে প্রধান শিক্ষকের স্বাক্ষর,প্যাড ও সীল জাল করে অবৈধ এডহক কমিটির অনুমোদন

    গোপালগঞ্জের একটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের স্বাক্ষর ও সীল জাল করে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড থেকে অবৈধ এডহক কমিটির অনুমোদনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার বৌলতলী ইউনিয়নের বৌলতলী সাহাপুর সম্মিলনী উচ্চ বিদ্যালয়ে। এ ব্যাপারে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশরাফুল আলম বিষয়টি জানিয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বোর্ড ঢাকার চেয়ারম্যান বরাবরে একটি অভিযোগ দাখিল করেছেন।অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, বৌলতলী সাহাপুর সম্মিলনী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশরাফুল আলম ম্যানেজিং কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ার কারনে গত ২২ জানুয়ারী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বোর্ডের চেয়ারম্যান বরাবর এডহক কমিটি তৈরীর আবেদন জানিয়ে একটি দরখাস্ত প্রেরন করেন। তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষীতে বোর্ড কতৃপক্ষ ১ ফেব্রুয়ারী ২২৪৬ (৩) স্বারকে একটি পত্র প্রেরন করে প্রধান শিক্ষককে একটি এডহক কমিটি গঠনের জন্য অনুমতি প্রদান করেন। তবে সভাপতি ব্যাতিত অভিবাবক প্রতিনিধি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কতৃক মনোনীত ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কতৃক মনোনীত শিক্ষক প্রতিনিধি মনোনয়ের কথা বলা হয়। উক্ত পত্রের আলোকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত ০৫.৩০.৩৫৩২.০০২.০৬.০০৫.১৭-৩০৮/১(৪) নং স্বারকে পবিত্র মজুমদার কে অভিবাবক প্রতিনিধি ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত জেশিঅ/গোপাল/২০১৮/১৬৮(৫) স্বারকে ভুপতি রঞ্জন দাস কে শিক্ষক প্রতিনিধি হিসাবে মনোনীত করে এবং প্রধান শিক্ষকে এডহক কমিটির সভাপতি নির্বাচন করার কথা বলা হয়।প্রধান শিক্ষক কতৃক সভাপতির মনোনয়নকৃত চিঠি বোর্ডে না যাওয়ার আগেই মো: মাহমুদ আলম নামে জনৈক ব্যাক্তি প্রধান শিক্ষকের স্বাক্ষর, সীল ও বিদ্যালয়ের প্যাড জাল করে এবং অভিবাবক প্রতিনিধি, শিক্ষক প্রতিনিধি মনোনয়নের চিঠি ভুয়া স্বারকের কপি তৈরী করে শিক্ষা বোর্ডের সংশ্লিষ্ট শাখার ডিলিং এসিস্ট্যান্ড এর সাথে লক্ষাধিক টাকার অবৈধ লেন-দেনের মাধ্যমে সম্পুর্ন অনৈতিক পন্থায় ঢাকা শিক্ষা বোর্ড থেকে নিজের নামে সভাপতি মনোনয়ন ও একটি এডহক কমিটি করিয়ে আনে। যাহা সম্পুর্ন ভুয়া ও মিথ্যা বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।উক্ত ভুয়া কমিটির বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে বৌলতলী সাহাপুর সম্মিলনী উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক আশরাফুল আলম বিষয়টি জানিয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বোর্ড ঢাকার চেয়ারম্যান বরাবরে আরো একটি অভিযোগ দাখিল করেছেন।এ ব্যাপারে বৌলতলী সাহাপুর সম্মিলনী উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক আশরাফুল আলমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, মো: মাহমুদ আলম একজন সুচতুর ব্যাক্তি তিনি জাল জালিয়াতির এবং লক্ষাধিক টাকার বিনিময়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বোর্ড ঢাকার থেকে একটি ভুয়া এডহক কমিটি করিয়ে আনেন যাহা আদৌও কার্যকরি না।তিনি আরো বলেন, সভাপতি ব্যাতিত অভিবাবক প্রতিনিধি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কতৃক মনোনীত ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কতৃক মনোনীত শিক্ষক প্রতিনিধি মনোনয়ের কথা বলা হয়। উক্ত পত্রের আলোকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত ০৫. ৩০. ৩৫৩২. ০০২. ০৬. ০০৫. ১৭-৩০৮/১ (৪) নং স্বারকে পবিত্র মজুমদার কে অভিবাবক প্রতিনিধি ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত জেশিঅ/গোপাল/২০১৮/১৬৮(৫) স্বারকে ভুপতি রঞ্জন দাস কে শিক্ষক প্রতিনিধি হিসাবে মনোনীত করেন। অথচ মো: মাহমুদ আলম বোর্ডে যে সকল চিঠির কথা উল্লেখ করেছেন তার স্বারক নম্বরই ভুল। তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত ০৫. ৩০. ৩৫৩২. ০০২. ০৬. ০০৫. ১৭-৩০৮/১ (৪) নং স্বারক কে ০৫. ৩০. ৩৫৩২. ০০২. ০৬.০০৫. ১৭-৩০৮ নং স্বারক ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত জেশিঅ/গোপাল/ ২০১৮/ ১৬৮ (৫) স্বারকে জেশিঅ/গোপাল/২০১৮/১০৬৮ নং স্বারক উল্লেখ করেছেন যাহা সম্পুর্ন মিথ্যা। মাহমুদ আলম বর্তমানে ওই ভুয়া এডহক কমিটির সভাপতি পরিচয়ে বিদ্যালয়ে এসে বিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিবেশ ব্যাহত করছেন। ওই ভুয়া এডহক কমিটির বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।এ ব্যাপারে এডহক কমিটির সভাপতি পরিচয় দানকারী মো: মাহমুদ আলমের ব্যবহৃত মোবাইল ০১৭১১-৩৯৭৯০৯ নম্বরে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এ কমিটির ব্যাপারে আমার কোন ক্ষমতা নেই। যা যা করার ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক করেছে। আমি এ ব্যাপারে কিছুই করিনি। আমি বোর্ডের চেয়ারম্যান সাহেবের সাথে কথা বলেছি তিনি আমাকে বলেছেন সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। স্বারক নম্বর ভুলের ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন আমার ইউএনও অফিসে গিয়ে দেখতে হবে। আমি চিঠি দেখে জানাতে পারবো। এ সময় তিনি আরো বলেন আমার ভাইও সাংবাদিক সে এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজে ঢাকায় আছেন।

  • জলঢাকায় ঘুষের টাকা ফেরত না দেওয়ায় প্রধান শিক্ষক অবরুদ্ধ। আহত-১

    নীলফামারী জলঢাকায় ৪ লক্ষ টাকায় ঘুষ নিয়ে চাকুরী না দেওয়ায় জনতার কাছে অবরুদ্ধ হলেন, হামিদুর রহমান নামের এক প্রধান শিক্ষক। এ সময় চাকুরী প্রার্থীর ভাইকে মেরে আহত করেছে ওই স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও হামিদুর রহমানের লোকজন। ঘটনাটি মঙ্গলবার বিকালে উপজেলার শৌলমারী গোপালঝাড় দ্বিমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ে। চাকুরী প্রার্থীর বাবা ফজলুর রহমান জানায়, প্রায় ৩ বছর আগে আমার ছেলে সোহরাব হোসেন (সিমলু) লাব্রেরিয়ান পদে চাকুরীর প্রলোভন ও গ্রন্থাগার সার্টিফিকেট পেয়ে দেওয়ার কথা বলে মোট ৪ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা ঘুষ নেয় গোপালঝাড় দ্বিমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হামিদুর রহমান। দীর্ঘদিন টালবাহনা করে মঙ্গলবার ১২ লক্ষ টাকায় শিবির কর্মী সাদেকুর রহমানের তাকে চাকুরী পেয়ে দেয় এবং স্কুলে এই উপলক্ষ্যে মিষ্টি বিতরণ করা হয়। এ খবর শুনে স্কুলে গিয়ে প্রধান শিক্ষকের কাছে ঘুষের টাকা ফেরত চাইলে তিনি আমার উপর চড়াও হন। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় লোকজন হামিদুর মাষ্টারকে অবরুদ্ধ করে রাখে। শুধু সোহরাব হোসেনেই নয় এরকম প্রতারণার শিকার বালাগ্রাম ইউনিয়নের আসাদুজ্জামানের স্ত্রী তানিয়া আক্তার জানান, একই পদের কথা বলে আমার কাছ থেকে হামিদুর রহমান টাকা নিয়েছে প্রায় ৯ লক্ষ টাকা আর সার্টিফিকেট বাবদ নিয়েছে ৫০ হাজার টাকা। এ সংক্রান্ত ৬ লক্ষ ৩৫ হাজার টাকার স্বীকারোক্তিমূলক স্বাক্ষর রয়েছে এবং ডিমলা বিন্দা রানী সরকারী হাই স্কুলে নিয়োগ পরীক্ষায় আমাকে সিলেকশন দিয়েছে। অথচ প্রধান শিক্ষক বলেছেন গ্রন্থাগারের সার্টিফিকেটটি নাকি জাল! এজন্য নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে না। আহত সুমন আলী (২৯) জানায়, আমার বাবা ফজলুর রহমান ওই স্কুলের একজন দাতা সদস্য তিনি প্রতিষ্ঠানটিতে প্রথমে ৩৫ শতাংশ পরে ১৫ শতাংশ জমি দান করেছেন। আমার ভাইয়ের চাকুরী বাবদ নগদ মোটা অঙ্কের টাকা দিয়েও চাকুরী দেয়নি। উল্টো এর প্রতিবাদ করলে সভাপতি ও তাদের লোকজন আমাকে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেছে এবং মামলাও দিয়েছে। এঘটনায় মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার চঞ্চল কুমার ভৌমিক অবরুদ্ধের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, এটা ম্যানেজিং কমিটির অভ্যন্তরীন বিষয় আমার সাথে সংশ্লিষ্টতা নেই। ওই স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নুরুজ্জামানকে মুঠোফোনে বার-বার চেষ্ট করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক হামিদুর রহমান অভিযোগ অ-স্বীকার করে বলেন, এটা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র।

তথ্যপ্রযুক্তি

post-10

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ সম্প্রচার ও টেলিযোগাযোগ খাতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনবে : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ মহাকাশে সফলভাবে উৎক্ষেপণ হওয়ায় দেশবাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ আমাদের সম্প্রচার ও টেলিযোগাযোগ খাতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনবে। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ মহাকাশে সফল ভাবে উৎক্ষেপণ হওয়া উপলক্ষে আজ শনিবার দেয়া এক বাণীতে তিনি এ কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর কার্যক্রমের সার্বিক সাফল্য কামনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট সম্প্রচার ও টেলিযোগাযোগ খাতের উন্নয়নের মাধ্যমে দেশ এবং দেশের জনগণের জন্য সীমাহীন সুযোগ সৃষ্টি করবে। শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের অব্যাহত অগ্রযাত্রার ধারাবাহিকতায় আজকে যোগ হল আরও একটি মাইলফলক। আজ আমরা মহাকাশে উৎক্ষেপণ করলাম বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১। এই স্যাটেলাইটের মাধ্যমে আমরা মহাকাশে বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করলাম। জাতির এই গৌরবময় দিনে আমি দেশবাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০৯ সাল থেকে বর্তমান সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এই কর্মসূচির অংশ হিসেবে ইউনিয়ন পর্যায়েও ইন্টারনেট সেবা বিস্তৃত করা হয়েছে। ২০২১ সালের মধ্যে বিশ লাখ তরুণ-তরুণীকে প্রযুক্তি পেশায় সম্পৃক্ত করতে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, ফ্রিল্যান্স পেশার প্রসার ঘটিয়ে বিশ্বে আমাদের অবস্থান এখন তৃতীয় স্থানে। দেশী-বিদেশি সংস্থাসমূহের ব্যবসার সুযোগ বৃদ্ধির জন্য হাইটেক পার্ক নির্মাণ করা হচ্ছে। সহজ ও সুলভ ইন্টারনেটের জন্য সাবমেরিন ক্যাবলকে সিমিউই ফাইভের সঙ্গে সংযুক্ত করার পাশাপাশি আন্তর্জাতিকমানের ডাটা সেন্টার নির্মাণ করা হয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তির সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে স্যাটেলাইট। এখন থেকে আমরা স্যাটেলাইট ক্লাবের গর্বিত অংশীদার। শেখ হাসিনা শ্রদ্ধার সঙ্গে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের ত্রিশ লাখ শহিদ, দু’লাখ সম্ভ্রম হারানো মা-বোনকে স্মরণ করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অনুধাবন করেছিলেন বহির্বিশ্বের সঙ্গে অব্যাহত যোগাযোগ রক্ষা করতে না পারলে অগ্রগতি ও প্রগতির পথে এগিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। স¦াধীনতার মাত্র তিন বছরের মাথায় ১৯৭৫ সালে তিনি রাঙ্গামাটির বেতবুনিয়ায় প্রথম উপগ্রহ ভূ-কেন্দ্র উদ্বোধন করেন। আজ আমরা জাতির পিতার সেই স¦প্ন বাস্তবায়নে আরেক ধাপ এগিয়ে গেলাম নিজস¦ কৃত্রিম উপগ্রহ বঙ্গবন্ধু-১ উৎক্ষেপণের মধ্য দিয়ে। তিনি বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ নির্মাণ ও উৎক্ষেপণের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, বিটিআরসি, প্রকল্প এবং বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের সকল কর্মীকে ধন্যবাদ জানান। একই সাথে প্রধানমন্ত্রী স্যাটেলাইট নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান ফ্রান্সের ‘থেলাস এলিনিয়া’ এবং উৎক্ষেপণকারী প্রতিষ্ঠান ‘স্পেস-এক্স’-কে এবং রাশিয়াকে তাদের অরবিটাল সøট ব্যবহারের সুযোগ প্রদানের জন্য বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানান।

  • সাইবার অপরাধের বিরুদ্ধে কমনওয়েলথের দৃঢ় অবস্থান

    কমনওয়েলথ রাষ্ট্রসমূহ ঐতিহাসিক ঘোষণায় বর্তমান ও ২০২০ সালের মধ্যে সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে দৃঢ় অঙ্গিকার ব্যক্ত করেছে।

    আজ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, লন্ডনে অনুষ্ঠিত কমনওয়েলথ সরকার প্রধানদের (সিএইচওজিএম) বৈঠকে ঐতিহাসিক ঘোষণায় কমনওয়েলথের ৫৩ জন নেতা সাইবার অপরাধ বন্ধে একসঙ্গে কাজ করতে সম্মত হয়েছেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এই ঘোষণা সাইবার নিরাপত্তা সহযোগিতা বিষয়ে বিশ্বের সর্ববৃহৎ এবং ভৌগলিক দিক থেকে আন্ত:সরকারের একটি বলিষ্ঠ প্রতিশ্রুতি।

    সিএইচওজিএম’র এই ঘোষণার পর অপরাধী গ্রুপকে সামলাতে ও যুক্তরাজ্যসহ বিশ্বব্যাপী নিরাপত্তা হুমকি সৃষ্টিকারি রাষ্ট্রকে মোকাবেলায় সাইবার নিরাপত্তা সক্ষমতা জোরদারে কমনওয়েলথ রাষ্ট্রসমূহকে সহায়তা করতে যুক্তরাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করা হয়।

    কমনওয়েলথ সেক্রেটারি জেনারেল প্যাট্রিসিয়া স্কটল্যান্ড ঘোষণার পর বলেন, সাইবার স্পেস আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্য নতুন সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছে। তিনি বলেন, অভিন্ন পণ্যের জন্য কমনওয়েলথ কানেকশনের বহুমুখি স্তরের নতুন সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছে। এতে অনেক ইতিবাচক সুফল বয়ে আনবে। কমনওয়েলথ সদস্য রাষ্ট্রসমূহ তাদের সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে একসঙ্গে কাজ করবে। তারা জাতীয়, আঞ্চলিক ও আর্ন্তজাতিক নিরাপত্তায় যে কোন সাইবার অপরাধের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত এবং সম্মিলিত ভাবে পদক্ষেপ নিতে পারবে।

    কমনওয়েলথ সাইবার ঘোষণা অর্থনৈতিক এবং আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও অনলাইন অধিকারের মতো বিষয়ে সাইবার স্পেসের লক্ষ্য নির্ধারন করেছে। কমনওয়েলথ সদস্য দেশসমূহের মধ্যে ছোট দেশগুলোর জন্য এই ঘোষণা একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। কমনওয়েলথ সদস্যভূক্ত ৫৩ টি রাষ্ট্রের মধ্যে ৩১ টি রাষ্ট্রের জন্য এই ঘোষণা সাইবার অপরাধ বন্ধে সহায়ক হবে। তারা নিজেদের অর্থনৈতিক এবং সামাজিক অগ্রগতি এগিয়ে নিয়ে যেতে বাস্তব মুখি পদক্ষেপ নিতে পারবে।

    কমনওয়েলথ সিভিল এবং ক্রিমিনাল জাস্টিস রিফর্ম অফিসের প্রধান স্টীভেন ম্যালবে বলেন, কমনওয়েলথ সাইবার ঘোষণা একটি ঐতিহাসিক দলিল। এ দলিল কমনওয়েলথ সদস্যভূক্ত ৫৩ টি রাষ্ট্রকে এক সঙ্গে কাজ করার সুযোগ করে দিয়েছে। সাইবার নিরাপত্তা এবং জনগনের অধিকার রক্ষায় কমনওয়েলথ এখন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারবে। বিশ্বব্যাপী সাইবার চ্যালেঞ্জ বৃদ্ধি পাচ্ছে। সাইবার অপরাধ বন্ধ এবং সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কমনওয়েলথ দেশসমূহ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। ঘোষণায় বিশ্বব্যাপী স্থিতিশীলতা এবং সাইবার স্পেস প্রশ্নে আন্তর্জাতিক আলোচনায় কমনওয়েলথকে আরো সক্রিয় ভূমিকা রাখতে সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছে।

    তিনি আরো বলেন, সাইবার ক্রাইম সংক্রান্ত আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনী ও বিচার কর্মকর্তাদের জন্য আন্তর্জাতিক সহযোগিতা এবং সক্ষমতা গড়ে তুলতে এই ঘোষণার প্রয়োজন ছিল। এই ঘোষণা কমনওয়েলথ সাইবার ইনিশিয়েটিভ(সিসিআই) ও কমনওয়েলথ টেলিকমিউনিকেশন অর্গানাইজেশনসহ (সিটিও) এ ক্ষেত্রে অব্যাহত কাজ করে যাবে।

    সিটিও এবং কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি এসোসিয়েশনের সহযোগিতায় কমনওয়েলথ সেক্রেটারি সাইবার নিরাপত্তা সক্ষমতা গড়ে তুলতে সাইবার অপরাধে আক্রান্ত দেশগুলোকে টেকনিক্যাল সহায়তা দিবে।

বিনোদন

Back to Top

E-mail : info@dpcnews24.com / dpcnews24@gmail.com

EDITOR & CEO : KAZI FARID AHMED (Genarel Secratry - DHAKA PRESS CLUB)

Search

Back to Top