অর্থনীতি

আগামী বাজেটে করপোরেট করহার কমানোর ইঙ্গিত অর্থমন্ত্রীর

ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে করপোরেট করহার কমানোর দাবির প্রেক্ষিতে আগামী অর্থবছরের বাজেটে করপোরেট করহার কমানোর ইঙ্গিত দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।তিনি বলেন,‘এবার সর্বোচ্চ করপোরেট করহার কমানোর চিন্তা করছে সরকার।একইসাথে ব্যক্তি পর্যায়ের করমুক্ত আয়সীমা ৩ থেকে ৫ বছরের জন্য ফিক্সড করা যায় কি-না সেটাও আমরা ভাবছি।’রোববার রাজধানীর আগারগাঁও বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনকেন্দ্রে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ও এফবিসিসিআইয়ের যৌথ পরামর্শক সভায় এসব কথা বলেন তিনি।সভায় ব্যবসায়ীরা আসছে বাজেটে সব ধরনের কোম্পানির করপোরেট করহার কমানোর প্রস্তাব দেন। এছাড়া ব্যক্তিশ্রেণীর করমুক্ত আয়সীমা ২ লাখ ৫০ হাজার থেকে বাড়িয়ে ৩ লাখ ২৫ হাজার টাকা করার সুপারিশ করেন তারা।সভায় এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান, এফবিসিসিআই সভাপতি আব্দুল মাতলুব আহমাদ, জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, ডিসিসিআই সভাপতি আবুল কাশেম খানসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা বক্তব্য রাখেন।অর্থমন্ত্রী বলেন,ব্যক্তি পর্যায়ের আয়কর সীমা ঘোষণার পাশাপাশি নারীদের করমুক্ত করসীমার একটি স্থায়ী কাঠামো দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। আমেরিকাসহ উন্নত দেশগুলোর মতো আয়ের লিমিট দেয়া হবে। লিমিটের বেশি আয় হলে অবশ্যই ট্যাক্স দিতে হবে।তিনি বলেন,ব্যবসায়ীরা অগ্রীম ভ্যাট না নেওয়ার দাবি তুলেছেন। বর্তমানে ৫ শতাংশ অগ্রীম ভ্যাট আদায় করা হয়। বাজেটে ব্যবসায়ীদের দাবি বিবেচনার চেষ্টা করবো।এছাড়া ২০২৪ সাল পর্যন্ত দেশের আইসিটি সেক্টরকে অবমুক্ত করা হয়েছে। কিন্তু আইসিটি ব্যবসায়ীরা বলছেন তারা অবমুক্ত সার্টিফিকেট পায়নি। এটা ঠিক হয়নি। এনবিআরকে বলবো দ্রুত তাদেরকে এটা দেয়া উচিত।ভোক্তা স্বার্থ সুরক্ষায় আইনের প্রসঙ্গে মুহিত বলেন, টোব্যাকো ট্যাক্সে বাংলাদেশ দূর্বল। আগামী অর্থবছর টোব্যাকো ট্যাক্স ভালো হবে। বিড়ি দেশ থেকে বিদায় দিতে হবে। বিড়ি নিয়ে অনেক মিথ আছে। বিড়ি এখন নেই,সব লো কোয়ালিটির সিগারেটের পরিণত হয়েছে।আসন্ন বাজেটকে উচ্চাভিলাষী উল্লেখ করে তিনি বলেন, আগে ট্যাক্স দেওয়ার সময় হয়রানির ঘটনা ঘটতো;সেজন্য অনেকেই ট্যাক্স নেটে আসতে চাইতো না। এ সংস্কৃতিকে আমরা সফলভাবে বিদায় করেছি।এখন মানুষ ট্যাক্স দিতে চায়।ট্যাক্স দেয়াকে বাহাদুরী মনে করে।তরুণ প্রজন্মও ট্যাক্স দিতে আগ্রহী।আমাদের ই-টিআইএন প্রতিদিন বাড়ছে।তাই আগামী বাজেটকে বড় করতে চাই, এটাকে উচ্চাবিলাসীও বলতে পারেন বলে তিনি মন্তব্য করেন।সভায় এক ব্যবসায়ী নেতা নতুন ভ্যাট আইনের আওতায় এফবিসিসিআইয়ের প্রস্তাব মোতাবেক ভ্যাট হার মেনে না নিলে আন্দোলনে যাবার হুমকি দিলে অর্থমন্ত্রী বলেন,‘আপনারা ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে কতজন ভ্যাট দেন? আপনারা খামাখা আন্দোলন করছেন। যদি আপনারা আন্দোলন করেন, তবে আমরা তা দমন করব।’সভায় শুধু মূল্য সংযোজনের ওপরেই কর আরোপের প্রস্তাব দিয়েছে এফবিসিসিআই। এ ছাড়া বেশ কিছু খাতে রেয়াতি হারে মূসক আরোপের প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে। আবার যাঁরা নতুন আইনে উপকরণ রেয়াত নিতে পারবেন না; তাঁদের ওপর সাড়ে ৪ শতাংশ হারে মূসক আরোপ করার সুপারিশ করা হয়েছে। ৩৬ লাখ টাকা থেকে ৫ কোটি টাকার লেনদেন পর্যন্ত ৩ শতাংশ হারে টার্নওভার কর আরোপের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।করপোরেট করের ক্ষেত্রে এফবিসিসিআইয়ের প্রস্তাব হলো, শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানের করপোরেট কর হার ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে সাড়ে ২২ শতাংশ; শেয়ারবাজারে তালিকাবহির্ভূত অন্য উৎপাদনশীল প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে ৩০ শতাংশ (ভ্যাট নিবন্ধনের শর্ত থাকবে) ; অন্য ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের সাড়ে ৩২ শতাংশ কর আরোপ। এ ছাড়া যেসব ব্যাংক, বিমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত, তাদের কর হার ৪০ শতাংশ থেকে কমিয়ে সাড়ে ৩৭ শতাংশ করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত নয় এমন আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর কর হার কমিয়ে ৪০ শতাংশ এবং মার্চেন্ট ব্যাংকের কর হার ৩৫ শতাংশ করার সুপারিশ করেছে সংগঠনটি।

  • পোশাকশিল্পের জন্য মজুরি বোর্ড গঠনের অনুরোধ

    পোশাকশিল্পের শ্রমিকদের জন্য নতুন মজুরি বোর্ড গঠন করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ক্রেতাদের জোট অ্যাকর্ড অন ফায়ার অ্যান্ড বিল্ডিং সেফটি ইন বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি দিয়ে এই আহ্বান জানায় জোটটি। প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া চিঠিতে অ্যাকর্ডের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, মজুরি বোর্ড গঠনের পাশাপাশি যদি নিয়মিত পর্যালোচনার একটি ব্যবস্থা করা হয়, তবে সেটি পোশাক খাতের স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে সহায়তা করবে। একই সঙ্গে তা সাম্প্রতিক সময়ে পোশাক খাতে যে অনভিপ্রেত ও অপ্রত্যাশিত ঘটনা ঘটেছে, তা-ও এড়ানো যাবে। এ ধরনের পরিস্থিতি শিল্পের ভাবমূর্তি ও আস্থা ক্ষুণ্ন করে, যা সরকারসহ সবাই কঠোর পরিশ্রম করে অর্জন করেছে। ১২ জানুয়ারি অ্যাকর্ড প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এই চিঠি দিয়েছে। অ্যাকর্ডের পক্ষে চিঠিতে স্বাক্ষর করেন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক রব ওয়েজ। বৃহস্পতিবার চিঠির অনুলিপি নিজেদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছে অ্যাকর্ড। সেই চিঠির অনুলিপি শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক, বিজিএমইএর সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান, বিকেএমইএর সভাপতি এ কে এম সেলিম ওসমানকে দিয়েছে সংস্থাটি। মজুরি বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন দাবিতে গত মাসে আশুলিয়ায় পোশা৬কশ্রমিকেরা কর্মবিরতি পালন করেন। আন্দোলন ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়লে সেখানকার ৫৯ কারখানা চার দিন বন্ধ থাকে। এ সময় আন্দোলন করার অজুহাতে অনেক শ্রমিককে ছাঁটাই করে কয়েকটি কারখানার কর্তৃপক্ষ। কয়েক হাজার শ্রমিকের বিরুদ্ধে নয়টি মামলা হয়। পুলিশের হাতে বেশ কয়েকজন শ্রমিকনেতা গ্রেপ্তার হন। এই প্রেক্ষাপটেই অ্যাকর্ড প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছে। ২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল রানা প্লাজা ধসের পর দেশের পোশাক খাতের কর্মপরিবেশ উন্নয়নে ইউরোপীয় ২২০ ব্র্যান্ড ও খুচরা বিক্রেতা এবং দেশি-বিদেশি শ্রমিক সংগঠনের চুক্তির মাধ্যমে অ্যাকর্ড গঠিত হয়। পরিদর্শনের মাধ্যমে পোশাক কারখানার অগ্নি, ভবন ও বৈদ্যুতিক ত্রুটি চিহ্নিত করে অ্যাকর্ড। তারপর সংস্থার তত্ত্বাবধানে ত্রুটি সংশোধন করে কারখানাগুলো। অ্যাকর্ডের পাশাপাশি উত্তর আমেরিকার ক্রেতাদের জোট অ্যালায়েন্স একইভাবে কাজ করছে। চিঠিতে অ্যাকর্ড বলেছে, গত তিন বছরের বেশি সময়ে অ্যাকর্ডের অধীনে দেশের পোশাকশিল্প নিরাপত্তা ইস্যুতে অভূতপূর্ব উন্নতি করেছে। প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া চিঠিতে গত মাসের আশুলিয়ার ঘটনায় গভীরভাবে উদ্বেগ জানিয়ে অ্যাকর্ড বলেছে, সম্প্রতি যাঁদের আটক ও ছাঁটাই করা হয়েছে, তাঁরা শ্রমিক অধিকারে সোচ্চার। বিশ্বস্ত তথ্য অনুযায়ী, গত মাসে কমপক্ষে ১৪ জন আটক বা গ্রেপ্তার হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ১১ জন পুলিশি হেফাজতে আছেন। দু-তিনজনকে মারধর করা হয়েছে। প্রায় দেড় হাজার শ্রমিক ছাঁটাইয়ের শিকার হয়েছেন। এ ছাড়া আশুলিয়ার শ্রমিক-অসন্তোষে সাত শতাধিক শ্রমিকের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ আছে এবং তাঁরা সম্ভাব্য গ্রেপ্তারের হুমকির মধ্যে আছেন। দেশের শ্রম ও আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) কনভেনশন অনুযায়ী দেশের শ্রমিকদের অধিকার সুরক্ষায় শিগগিরই ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেছে অ্যাকর্ড। একই সঙ্গে শ্রমিকদের যদি অন্যায়ভাবে আটক ও ছাঁটাই এবং মৌলিক অধিকার ক্ষুণ্ন হয়, সে ক্ষেত্রে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছে সংস্থাটি। অ্যাকর্ডের পাশাপাশি সম্প্রতি বিশ্বখ্যাত এইচঅ্যান্ডএমসহ ২০টির বেশি ব্র্যান্ড ও ক্রেতাপ্রতিষ্ঠান পোশাকশিল্পের মজুরি পর্যালোচনার জন্য অনুরোধ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সম্মিলিতভাবে একটি চিঠি দিয়েছে। এতে আশুলিয়ার সাম্প্রতিক শ্রমিক-অসন্তোষের বিষয়টি উল্লেখ করে শ্রমিকদের অধিকার সংরক্ষণের অনুরোধ করা হয়। পোশাক খাতে সর্বশেষ ২০১৩ সালের ডিসেম্বর মজুরি বাড়ে। সে সময় খাতটির ন্যূনতম মজুরি ৩ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫ হাজার ৩০০ টাকা করা হয়। শ্রম আইন অনুযায়ী, মজুরি ঘোষণার এক বছর পর ও তিন বছরের মধ্যে মজুরি পুনর্নির্ধারণের সুযোগ আছে। পাঁচ বছর পরপর মজুরি বোর্ড গঠিত হবে। অ্যাকর্ডের চিঠির বিষয়ে জানতে চাইলে তৈরি পোশাকশিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর সহসভাপতি মোহাম্মদ নাছির বলেন, ‘মজুরি বোর্ড গঠন করার আহ্বান জানানোর কোনো এখতিয়ার অ্যাকর্ডের নাই। কারণ, তাদের কার্যক্রম কেবলমাত্র পোশাক কারখানা পরিদর্শন ও তত্ত্বাবধানের মধ্যে সীমাবদ্ধ।’ এইচঅ্যান্ডএমসহ অন্য ক্রেতাপ্রতিষ্ঠানের চিঠির বিষয়ে মোহাম্মদ নাছির বলেন, ‘আমরা প্রতিনিয়ত ক্রেতাদের পোশাকের দাম বাড়াতে অনুরোধ করছি। তারা পোশাকের দাম এক সেন্ট বাড়ায়নি, বরং কমিয়েছে। উল্টো গ্যাস-বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির ফলে উৎপাদন খরচ বেড়েছে। কারখানার মান উন্নয়নে বিপুল পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগের চাপ আছে মালিকদের ওপর।

  • পোশাক রফতানি ৬০ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যাবে: বিজিএমইএ সভাপতি

    অবকাঠামো সুবিধা নিশ্চিত করা গেলে ২০২১ সাল নাগাদ পোশাক রফতানি আয় ৬০ বিলিয়ন ডলার হতে পারে বলে মনে করেন বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান। তিনি বলেন, ইউরোপ এবং আমেরিকার ক্রেতাদের তত্ত্বাবধানে পোশাক খাতের সংস্থার চলছে। ফলে চীন, জাপানসহ বিভিন্ন দেশের উদ্যোক্তা এ দেশে বিনিয়োগে আগ্রহ দেখাচ্ছেন। এ মুহূর্তে অবকাঠামো উন্নয়নে বিদ্যুত সরবরাহ লাইনের দুর্বলতা কাটানো এবং প্রস্তাবিত ১০০ অর্থনৈতিক অঞ্চল থেকে ঢাকা-চট্টগ্রামে পোশাক খাতের জন্য অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দু’টি অর্থনৈতিক অঞ্চল বরাদ্দ দেওয়ার অনুরোধ জানান তিনি। সিদ্দিকুর রহমান বলেন, দ্রুততম সময়ে এ ব্যবস্থা করা না হলে সংকট তৈরি হবে। কারণ, অর্থনৈতিক অঞ্চল নির্মাণে দশ বছর লেগে গেলে তখন আর বিনিয়োগকারী পাওয়া যাবেনা। ঢাকা অ্যাপারেল সামিট উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে রোববার এসব কথা বলেন তিনি। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে প্রথম সামিট চট্রগ্রামে অনুষ্ঠিত হয়। ওই সামিটের প্রতিপাদ্য ছিল দেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে পোশাক খাত থেকে ৫০ বিলিয়ন ডলার আয়ের লক্ষ্য। সেই লক্ষ্য বাস্তবায়নে একটি পথ নকশা করে বিজিএমইএ। গত দুই বছরে সেই নকশা অনুযায়ী, ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের চার লেনে উন্নীত হওয়াসহ অনেক কাজ এগিয়েছে বলে দাবি করেন সিদ্দিকুর রহমান। সেই সুবাদেই ৫০ বিলিয়ন ডলার রফতানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করছেন বিজিএমইএ সভাপতি।

  • ফুলবাড়ী সেটেলমেন্ট অফিসে অনিয়ম দূর্নীতি

    দিনাজপুরের ফুলবাড়ী সেটেলমেন্ট অফিসে দালাল ফড়–য়াদের তৎপরতা বৃদ্ধি, সাধারণ মানুষের ভোগান্তি। অনিয়ম দূর্নীতি, দেখার কেউ নেই। দিনাজপুরের ফুলবাড়ী সেটেলমেন্ট অফিসে এক যুগ ধরে চলছে জমি জমার মাঠ পর্চার কাজ। ৩০ ধারা, শুনানিতে বাদি বিবাদির নিকট থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা। কাগজ বৈধ থাকলেও তাদেরকে মাসের পর মাস হয়রাণি করা হচ্ছে। দেওয়া হচ্ছে না মাঠ পর্চা। আবার অনেকে অবৈধ জাল দলিলের কাগজপত্র জমা দিয়েও পার পেয়ে যাচ্ছে উৎকোচের বিনিময়ে। দীর্ঘ ১ যুগ ধরে ফুলবাড়ী উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার জরিপের কাজ শুরু হয়। শুরু থেকেই চলছে অনিয়ম দূর্নীতি। বর্তমান বেশকিছু ইউনিয়নে মাঠ পর্চার কাজ চলছে। মাঠ পর্চার কাজে বাদী বিবাদীরা কেউ ৩০ ধারায় আবেদন করেছে। যার কাগজপত্র ঠিক আছে তাকেও হয়রাণি করছে। অপরদিকে সেটেলমেন্ট অফিসের কতিপয় দালাল, অফিসের কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে বিবাদীকে মাঠ পর্চা দেওয়ায় দুপক্ষের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হচ্ছে। অযথা সাধারণ মানুষকে হয়রাণি করা হচ্ছে বলে জানান ভুক্তভূগিরা। জানাযায়, ফুলবাড়ী উপজেলার শিবনগর ইউপির চককবির গ্রামের হরিপদ পালের স্ত্রী বুলবুলি রাণীর চককবির মৌজার ১৬৬ খতিয়ান ১.১৩ একর জমির ৩টি পর্চার আলাদা আলাদা খতিয়ান করে পর্চা দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু গত ২৩/০১/২০১৭ ইং তারিখে ফুলবাড়ী সেটেলমেন্ট অফিসের মোঃ মোশররফ হোসেন ৩ হাজার টাকা নিয়ে আলাদা খতিয়ান খুলে পর্চা না দিয়ে পুরাতুন খতিয়ানে অংশ বসিয়ে দেন। এ ব্যাপারে গতকাল মঙ্গলবার বুলবুলি রাণি পালের সাথে মোবাইল ফোনে কথা বললে তিনি জানান, উক্ত অফিসের মোঃ মোশাররফ হোসেন পৃথক পৃথক পর্চা দেওয়ার কথা বলে  ৩ হাজার টাকা উৎকোচ গ্রহণ করেন। কিন্তু একই পর্চায় সবার নাম দেন। উক্ত সেটেলমেন্ট অফিসে এলাকার শত শত মানুষ দালাল খপ্পরদের পড়ে সর্বশান্ত হচ্ছে। বর্তমান উক্ত সেটেলমেন্ট অফিসে শিবনগর ইউপির সদস্য মজনু হক, মোঃ মোশাররফ হোসেন, বেতদিঘী ইউপির মোঃ আব্দুল আলিম, খয়েরবাড়ী ইউপির শ্রী লিটন কুমার সহ আরও বেশ কয়েকজন দালাল রিতিমত টাকার বিনিময়ে অবৈধকে বৈধ আর বৈধকে অবৈধ করে দিচ্ছেন। এমন অভিযোগ এলাকাবাসীর রয়েছে। ফুলবাড়ী উপজেলার অনেকে কয়েক যুগ আগে এবং স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় ভারতে বা পাকিস্থানে চলে গেছেন এবং অনেকে মারা গেছেন তাদের নামের জমির জাল দলিল সৃষ্টি করে প্রভাবশালীরা মাঠ পর্চা নিয়েছেন এমন অভিযোগ রয়েছে।     এছাড়া উক্ত অফিস থেকে প্রতিদিন ৪০ থেকে ৫০ জন জমি জমার মালিক কে ৩০ ধারা শুনানিতে নোটিশ প্রদান করে। তারা নোটিশ পাওয়া মাত্র সেটেলমেন্ট অফিসে এলে তাদের কে হাজিরা দিতে হয়। এ সময় প্রতি নোটিশের হাজিরায় ৫০ টাকা করে নেওয়া হচ্ছে। এমন অভিযোগ করেছেন সুলতানপুর গ্রামের প্রদীপ, সুনিল চন্দ্র, মধ্য সুলতান পুরের বুলবুল সহ অনেকে। এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী সহ কারী সেটেলমেন্ট অফিসার মোঃ আফসার আলীর সাথে কথা বললে তিনি জানান, উক্ত অফিসে কর্মরত তারা কেউ এই অফিসের নিয়োগ প্রাপ্ত কর্মচারী নয়। তারা আমাদেরকে সহযোগীতা করেন। তবে তাদের বিরুদ্ধে অনিয়ম দূর্নীতির কোন অভিযোগ পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে অভিযোগ উঠেছে ফুলবাড়ী সেটেলমেন্ট অফিসে কর্মরত বেশ কয়েকজন দালাল অনিয়ম দূর্নীতির মাধ্যমে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়েছেন। তাদের কারণে সাধারণ মানুষ উক্ত অফিসে সুষ্ঠু ভাবে কাজ করতে পারছে না। তাদের মাধ্যমে উৎ কোচের টাকা চলে যায় কর্মকর্তাদের পকেটে। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীরা দালাল ও দূর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ভূমি মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আন্তর্জাতিক

ম্যানচেস্টারে হামলা : নিহত ২২ আহত ৫৯

যুক্তরাজ্যের ম্যানচেস্টারে আত্মঘাতী বোমা হামলায় শিশুসহ ২২ জন নিহত ও ৫৯ জন আহত হয়েছে।স্থানীয় সময় সোমবার ২২টা ৩৫ মিনিটে মার্কিন গায়িকা আরিয়ানা গ্রান্ডের কনসার্ট শেষ হওয়ার পর পরই বিস্ফোরণটি ঘটে।খবর এএফপি’র।পুলিশ জানায়, একজন পুরুষ হামলাকারী এ হামলা চালিয়েছে। এই ঘটনায় সেও প্রাণ হারিয়েছে।চিফ কন্সটেবল ইয়ান হপকিনস বলেন, এটা গ্রেটার ম্যানচেস্টারে এ যাবতকালের সবচেয়ে ভয়াবহ ঘটনা।ঘটনাস্থলে ৬০টি অ্যাম্বুলেন্স মোতায়েন রয়েছে। নগরীর ছয়টি হাসপাতালে আহতদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

  • আফগানিস্তানে নতুন সামরিক অভিযানে ৭১ জঙ্গি নিহত

    সংঘাতপূর্ণ আফগানিস্তানে গত ২৪ ঘন্টার সামরিক অভিযানে ৭১ জঙ্গি নিহত হয়েছে। সোমবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে একথা বলা হয়। খবর সিনহুয়ার।বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘আফগান জাতীয় প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা বাহিনী কিছু এলাকা জঙ্গি ও শত্রু মুক্ত করতে সন্ত্রাস বিরোধী ১২টি অভিযান চালায়। এরফলে গত ২৪ ঘন্টায় ৭১ জঙ্গি নিহত হয়।’অভিযান চলাকালে আরো ৪০ জঙ্গি আহত এবং সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়। নানগড়হড়, হেলমান্দ, লঘমান, ফারাহ, কুন্দুজ, ঘর, ওয়ারদাক ও জাবুল প্রদেশের বিভিন্ন এলাকায় এসব অভিযান চালানো হয়।তবে এ সময়ে নিরাপত্তা বাহিনীর কোন সদস্য হতাহত হয়েছে কিনা সে ব্যাপারে বিবৃতিতে কিছু বলা হয়নি।

  • আফগানিস্তানে তালেবান হামলায় ২০ পুলিশ নিহত

    আফগানিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলে রোববার ভোরে কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে তালেবান যোদ্ধাদের হামলায় অন্তত ২০ পুলিশ নিহত হয়েছে। কর্মকর্তারা একথা জানান।প্রাদেশিক গভর্ণর বিসমিল্লাহ্ আফগানমাল বার্তা সংস্থা এএফপি’কে বলেন, ‘আজ সকালে একদল তালেবান যোদ্ধা ভারী ও হালকা অস্ত্র নিয়ে সমন্বিত হামলা চালায়। এতে ২০ পুলিশ নিহত হয়েছে। জাবুল প্রদেশের শাহ্ জয় জেলার কয়েকটি চৌকিতে এ হামলা চালানো হয়।

  • ইরানে প্রাথমিক ফলাফলে রুহানি পুনঃনির্বাচিত

    ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি দ্বিতীয় মেয়াদে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। এখনো চূড়ান্ত ঘোষণা দেয়া না হলেও দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে শনিবার ঘোষিত প্রাথমিক ফলাফল থেকে সে আভাসই পাওয়া গেছে। তেহরানের সাথে বিশ্বের অন্যান্য দেশের সম্পর্ক আরো জোরদারে তার প্রচেষ্টার প্রতি ভোটার সমর্থন জানানোতেই তিনি এ জয় পেতে যাচ্ছেন। খবর এএফপি’র।নির্বাচন কমিটির প্রধান আলী আসগর আহমাদি ইরানের রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত টেলিভিশনে বলেন, ভোট গণনা প্রায় করা শেষ হয়েছে। এতে দেখা যাচ্ছে রুহানি ২ কোটি ২৮ লাখ ভোট পেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর চেয়ে অনেক ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন। রুহানির প্রতিদ্বন্দ্বী কট্টরপন্থী প্রার্থী ইব্রাহিম রাইসি ১ কোটি ৫৫ লাখ ভোট পেয়েছেন। তবে রাইসি ভোটে কারচুপির অভিযোগ করেছেন। এক্ষেত্রে তার অভিযোগ রুহানির সমর্থকেরা ভোটকেন্দ্রে নির্বাচনী আইনবহির্ভূত নানা অপপ্রচার চালায়। ৫৬ বছর বয়সী রাইসি রক্ষণশীল বলে পরিচিত।বর্তমান প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি (৬৮) নির্বাচনী প্রচারে উদার ও বর্হিমুখী দৃষ্টিভঙ্গির ইরান গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দেন। পরমাণু চুক্তির ক্ষেত্রে তার সফলতাকে আরও সাফল্যের দিকে এগিয়ে নেওয়ার অঙ্গীকার করেন।২০১৫ সালে পরমাণু শক্তিধর ছয় দেশ যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীন, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স ও জার্মানির সঙ্গে ইরানের পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এ চুক্তির ফলে ইরান একটি নির্দিষ্ট সীমারেখা পর্যন্ত পরমাণু কর্মসূচি চালালেও পারমাণবিক অস্ত্র বানাতে পারবে না। এর বিনিময়ে ইরানের ওপর আরোপিত অর্থনৈতিক অবরোধ উঠে যায়।তবে যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নির্বাচিত হওয়ার পর এই চুক্তির বিরোধিতা শুরু করেন।

শিক্ষাঙ্গন

ফুলবাড়ীতে মাদরাসা সুপারের জালিয়াতি

দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার খয়েরবাড়ী দখিল মাদরাসার সুপার ইমামুল হকের জালিয়াতির শিকার হয়ে, ১২বছর চাকুরী করার পরেও এমপিও ভুক্ত হতে পারেনি ওই মাদরাসার সহকারী শিক্ষিকা মোছাঃ ফেন্সিয়ারা বেগম। মাদরাসা সুপারের জালিয়াতির শিকার মোছাঃ ফেন্সিয়ারা বেগম, চাকুরী ছেড়ে এখন পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। এদিকে চাকুরী দেয়া ও নিবন্ধন করার জন্য মাদরাসা সুপারকে দেওয়া সাড়ে তিন লাখ টাকাও ফেরত দিচ্ছেন না ওই জালিয়াতকারী মাদরাসার সুপার। মাদরাসার সুপারকে দেয়া টাকা উদ্ধারের জন্য প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন ওই শিক্ষিকা। ভুক্তভুগী শিক্ষিকা মোছাঃ ফেন্সিয়ারা বেগম বলেন মাদরাসা সুপার ইমামুল হক গত ২০০৪ সালে তাকে সহকারী শিক্ষিকা পদে নিয়োগ দেয়ার জন্য দুই লাখ ৫০ হাজার টাকা গ্রহন করেন। এর পর তাকে সহকারী শিক্ষিকা পদে নিয়োগ দেন। ২০০৪ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত তিনি নিয়মিত মাদরাসায় গিয়ে শিক্ষার্থীদের শিক্ষাদান করেন। শিক্ষিকা মোছাঃ ফেন্সিয়ারা বেগম বলেন ২০১০ সালে মাদরাসাটি এমপিও ভুক্ত হয়, এমপিও হওয়ার সময় তার নিবন্ধন সনদের প্রয়োজন হয়, এজন্য তিনি নিবন্ধন পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেলেন, সেই সময় মাদরাসার সুপার ইমামুল হক, তাকে নিবন্ধন সনদ দেয়ার কথা বলে এক লাখ টাকা গ্রহন করে একটি ভুয়া  নিবন্ধন সনদ এনে দেন। ওই ভুয়া নিবন্ধন সনদটি শিক্ষা মন্ত্রনালয়ে গিয়ে  ভুয়া বলে প্রমানিত হয়। এই কারনে তার আর চাকুরী করা হযনি। এ কারনে তিনি ২০১৬ সালে চাকুরী ছেড়ে তার দেয়া সাড়ে তিন লাখ টাকা ফেরৎ চাইলে, মাদরাসার সুপার আজ দিব কাল দিব বলে এখন পর্যন্ত ফেরৎ দেননি। তার দেয়া টাকা উদ্ধার করতে এখন তিনি প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘরছেন। গতকাল রোববার ফুলবাড়ী উপজেলার খয়েরবাড়ী দাখিল মাদরাসায় গিয়ে দেখা যায় মাদরাসা সুপার মাদরায় যায়নি, এই কারনে ওই মাদরাসার সহকারী সুপার সাইফুল ইসলামসহ সহকারী শিক্ষক আব্দুস ছালাম, সহকারী মিক্ষক আব্দুর রহমান মৌলুবি শিক্ষক হাছান আলী,  এফতেদায়ী শিক্ষক হাছান আলীর সাথে কথা হয়। শিক্ষকগণেররা বলেন মাদরাসার সুপার  ইমামুল হক দু,দপায় শিক্ষক ফেন্সিয়ারার নিকট সাড়ে তিন লাখ টাকা নিয়েছে, এই টাকা নিয়ে ওই মাদরাসায় কয়েক দফা বিচার সালিশও হয়েছে, একাধিকবার মাদরাসার সুপার ফেন্সিয়ারার নিকট নেয়া সাড়ে তিন লাখ টাকা ফেরৎ দেয়ার অঙ্গিকার করেও এখন পর্যন্ত তার টাকা ফেরৎ দেয়নি। সুধু ফেন্সিয়ারায় নয়, ওই সুপার চাকুরী দেয়ার কথা বলে অনেকের নিকট টাকা নিয়েছে। সম্প্রতিক মাদরাসার অফিস সহকারী পদে চাকুরী দেয়ার কথা বলে তিন জনের নিকট টাকা  নেয়ার কথাও উঠেছে বলে শিক্ষকগণ জানান। শিক্ষককেরা অভিযোগ করে বলেন মাদরাসা সুপার মাসে চার-পাঁচ দিনের বেশি মাদরাসায় আসেনা, অধিকাংশ সময বাহিরে থাকে। এই বিষয়ে কথা বলার জন্য সুপার ইমামুর ককের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে, তিনি ফুলবাড়ী বাজারে যোগাযোগ করার কথা বলেন, গত মঙ্গলবার ফুলবাড়ী বাজারে তাকে এই বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি ঘটনার আংশিক স্বীকার করে বলেন, নিয়োগ বোড করতে কিছু খরচ নেয়া হয়েছে, সেই খরচ কত টাকা জিজ্ঞেস করলে তিনি টাকার অংক  না বলে এড়িয়ে যান। এদিকে মাদরাসা সুপার সাইফুল ইসলামের অনিয়ম দুর্নীতির কারনে মাদরাসাটির কোন উন্নায়ন হযনি বলে অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী, সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মাদরাসাটি ২০০৪ সালে প্রতিষ্টার সময় নির্মান করা টিনসেট কাচা-পাকা প–রোনো ঘরে ক্লাস করছেন শিক্ষার্থীরা, ক্লাস রুম গুলো প্লাস্টার করাও হযনি, অথচ মাদরাসা সুপার একাধিক পদে মিক্ষক নিয়োগ দিয়ে বানিজ্য করে নিজের আখের গুছিয়েছেন বলে এলাকাবাসীরা অভিযোগ করেছেন। এজন্য এলাকায়বাসী ও শিক্ষা মন্ত্রলায়ের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

  • সরকার শিক্ষাখাত সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

    প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ উদযাপন দেশের শিক্ষাখাতের উন্নয়নকে আরো ত্বরান্বিত করবে প্রত্যাশা করে বলেছেন, শিক্ষার্থীগণের মেধা ও জ্ঞানের চর্চাকে আরো শাণিত করার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ গড়তে ভূমিকা রাখবে।তিনি বলেন, বর্তমান সরকার রূপকল্প ২০২১ ও রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে শিক্ষাকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে শিক্ষাখাতের উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৭ উপলক্ষে আজ দেয়া এক বাণীতে তিনি এ প্রত্যাশার কখা বলেন। আজ থেকে শুরু হচ্ছে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ। এ উপলক্ষে তিনি দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবকসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান।প্রধানমন্ত্রী বাণীতে বলেন, ‘আমরা যুগোপযোগী জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ প্রণয়ন করে বাস্তবায়ন করছি। আমরা ২৬ হাজার ১৯৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করেছি। এ সকল বিদ্যালয়ের ১ লাখ ২০ হাজার শিক্ষকের চাকুরি সরকারি করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের মেধাবৃত্তি ও উপবৃত্তিসহ বিভিন্ন ধরনের বৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে।’এছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট ফান্ড গঠন, শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ প্রদান, স্কুল ও কলেজের ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন, মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম স্থাপনসহ দেশে নতুন নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপন করা হয়েছে বলেও বাণীতে উল্লেখ করেন।প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাঁর সরকার ২০১০ সাল থেকে মাধ্যমিক পর্যায় পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্যে পাঠ্যবই বিতরণ করে যাচ্ছে। ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারি শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্যে ৩৬ কোটি ২১ লাখ ৮২ হাজার ২৪৫টি বই বিতরণ করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীভুক্ত শিক্ষার্থীদের জন্য তাদের মাতৃভাষায় পাঠ্যপুস্তক প্রস্তুত ও বিতরণ করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, ‘দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্রেইল বই বিতরণ করা হয়েছে। কারিগরি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি শিক্ষার প্রসারে ব্যাপক কর্মসূচি বাস্তবায়িত হচ্ছে। ১২৫টি উপজেলায় আইসিটি ট্রেনিং এন্ড রিসোর্স সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে। এ সকল পদক্ষেপে দেশে শিক্ষার সুযোগ ও হার ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে।শেখ হাসিনা বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার পরপরই একটি যুগোপযোগী শিক্ষাব্যবস্থা গড়ে তোলার লক্ষ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলেন। জাতির পিতার পদাঙ্ক অনুসরণ করে আওয়ামী লীগ সরকার সব সময়ই দেশের শিক্ষাখাতের প্রসার ও মানোন্নয়নকে অগ্রাধিকার দিয়েছে।জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ উপলক্ষে তৃণমূল থেকে জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন বিষয়ে প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের অভিনন্দন এবং প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীসহ আয়োজনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান।প্রধানমন্ত্রী ‘জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৭’ উপলক্ষে আয়োজিত সকল কর্মসূচির সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।

  • শিবপুরউচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক ও স্থানীয় সুধিজনদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

    গতকাল শনিবার দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি বিরামপুর উপজেলা শাখার সভাপতি একেএম শাহজাহানের সভাপতিত্বে  মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দিনাজপুর সমন্বিত কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. আব্দুল করিম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিরামপুর সার্কেলের জ্যেষ্ঠ সহকারি পুলিশ সুপার (এএসপি) এএসএম হাফিজুর রহমান, জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মো. খালেকুজ্জামান চৌধুরী। শিবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহাকারি শিক্ষক মো. আব্দুল হাকিম মোল্লার সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোখলেছুর রহমান, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এসএম জিন্নাহ, জোতবানী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রাজ্জাক, শিবপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল ওয়াহেদ, একইর উচ্চ বিদালয়ের প্রধান শিক্ষক ফারুক ই আজম, কেটরা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শিবপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি শাহাবুল ইসলাম প্রমুখ। প্রধান অতিথি আব্দুল করিম বলেন, দুর্নীতি প্রতিরোধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে হবে। দুর্নীতিবাজরা যতই ক্ষমতাবান হোকে তাঁদের ভয় পাবার কোন কারন নেই। কারন দুর্নীতিবাজরা সবসময় নৈতিকভাবে দুর্বল থাকে। বিশেষ অতিথি এএসপি হাফিজুর রহমান বলেন, দুর্নীতি মানে শুধু ঘুষ না। মানুষ হিসেবে যদি তার মধ্যে মানবিক গুনাবলীর আচরণ না করে সেটিও দুর্নীতি। নৈতিকতা বিরোধী কোন কাজ করলে সেটিও দুর্নীতি। সমাজ থেকে দুর্নীতিসহ সকল অপরাধ দুর করতে সকল পেশিশক্তির উর্ধ্বে থেকে বর্তমানে পুলিশ ব্যপক কাজ করে যাচ্ছে। একেএম শাহজাহান জানান, দুর্নীতি প্রতিরোধে বিভিন্ন কর্মকান্ডে অবদান রাখায় অতিথিবৃন্দ উপজেলার তেরটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিটির শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সততা সংঘের এগারোজন করে মোট ১৪৩ জন  শিক্ষার্থীকে পদক দিয়ে পুরষ্কৃত করা হয়েছে।

  • প্রফেসর মাহাবুব-উল-হক মজুমদার ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে যোগদান

    প্রফেসর ড. এস এম মাহাবুব-উল-হক মজুমদার ১৮ মে,২০১৭ তারিখে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে উপ-উপাচার্য হিসেবে যোগদান করেছেন। মহামান্য রাস্ট্রপতি ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির চ্যান্সেলর আবদুল হামিদ এর অনুমোদনক্রমে তিনি এ পদে যোগদান করেন। ১৭ মে ২০১৭ তারিখে স্বাক্ষরিত শিক্ষামন্ত্রনালয়ের প্রেরিত পত্রের আলোকে  বিম্ববিদ্যালয়ের ট্র্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মোঃ সবুর খানের হাতে  যোগদান পত্র তুলে দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এ পদে যোগদান করেন। যোগদানকালে বিশ^বিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. প্রকৌশরী এ কে এম ফজলুল হক,  পরিচালক ( হিসাব ও অর্থ) মোঃ মমিনুল হক মজুমদার, পরিচালক (প্রশাসন) মোহম্মদ ইমরান হোসেন সহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। যোগদানকালে ট্র্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মোঃ সবুর খান নবনিযুক্ত উপ-উপাচার্যকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।     উপ-উপাচায পদে যোগ দেয়ার আগে প্রফেসর মাহাবুব বিম্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি অনুষদের ডীন এর দায়িত্ব পালন করিেছলেন। তিনি ১০৭০ সালে চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের প্রভাষক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন।  পরবর্তীতে  রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ও  বিভাগীয় প্রধান এবং বিম্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রারের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ২০০০-২০০৩ সাল পর্যন্ত জাতীয় বিশ^বিদ্যালয়ের কারিকুলাম উন্নয়ন ও মূল্যায়ন কেন্দ্রের ডীন এর দায়িত্ব পালন করেন। প্রফেসর ড. এস এম মাহাবুব-উল-হক মজুমদার ২০০৫ সালে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে টেক্সটাইল ইহ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান হিসেবে যোগদান করেন। পরবর্তীতে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকসহ অনেক গুরুত্বপূর্ন পদে দায়িত্ব পালন করেন। সুদীর্ঘ শিক্ষকতা জীবনে প্রফেসর মাহাবুব মেধা বৃত্তি, ইউনেস্কো ফেলোশিপ ও ব্রিটিশ কাউন্সিল বৃত্তি লাভ করেন।   তিনি বাংলাদেশ এসোসিয়েশন ফর দি এডভান্সমেন্ট অব সায়েন্সস (ইঅঅঝ) ও বাংলাদেশ ক্যামিক্যাল বাউন্সিল এর অঅজীবন সদস্য এবং আমেরিকান বায়োগ্রাফিক্যাল  ইন্সটিটিউট এর পরামর্শক সম্পাদক হিসেবে কাজ করছেন।

তথ্যপ্রযুক্তি

post-10

জাতীয় ইন্টারনেট সপ্তাহ’ শুরু

দেশের সরকারি বিভিন্ন সেবা, ইন্টারনেটভিত্তিক ব্যবসায়ের প্রচার-প্রসার ও ইন্টারনেট গ্রাহক বাড়াতে বাংলাদেশে দ্বিতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হচ্ছে ‘জাতীয় ইন্টারনেট সপ্তাহ ২০১৬’। মঙ্গলবার (২৩ মে ২০১৭) সকাল ১০টায় রাজধানীর ঢাকা কলেজ প্রাঙ্গনে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয় দুইদিনব্যাপী এই মেলার। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধীনে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর এবং বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এই মেলার আয়োজন করেছে। ঢাকায় বৃহৎ এই মেলার পাশাপাশি বাংলাদেশের সবকটি উপজেলায়ও পালিত হবে দেশের সর্ববৃহৎ এই ইন্টারনেট উৎসব। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে এবারের জাতীয় ইন্টারনেট সপ্তাহের উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, বিসিসির নির্বাহী পরিচালক স্বপন কুমার সরকার এবং ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ মোয়াজ্জম হোসেন মোল্লাহ্। সভাপতিত্ব করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বনমালী ভৌমিক। আরও বক্তব্য রাখেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক মালিহা নার্গিস, জাতীয় ইন্টারনেট সপ্তাহের আহ্বায়ক ও বেসিস পরিচালক সৈয়দ আলমাস কবীর প্রমুখ। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী বলেন, সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে কাজ করছে। আর এক্ষেত্রে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ ফোকাল পয়েন্ট হিসেবে কাজ করছে। ইন্টারনেট হলো ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের প্রধান নিয়ামক। প্রান্তিক পর্যায়ে প্রয়োজনীয় এই ইন্টারনেট পৌছে দিতে আমরা দেশের সবগুলো ইউনিয়ন পর্যায় পর্যন্ত ফাইবার অপটিক ক্যাবল সংযোগ প্রদানের কাজ করছি। এছাড়া মানবসম্পদ উন্নয়ন, অবকাঠামো সুবিধাসহ প্রয়োজনীয় নানা প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। ইন্টারনেট সপ্তাহ সেই কার্যক্রমকে তুলে ধরা ও জনগনকে ইন্টারনেটমুখী করতে সহায়তা করবে। বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার বলেন, ভাষা আন্দোলনের মাধ্যমে ধারাবাহিকভাবে বিভিন্ন সংগ্রামে অর্জিত হয়েছে বাংলাদেশ নামক স্বাধীন রাষ্ট্রের। আর ইন্টারনেট হলো ডিজিটাল বাংলাদেশ রুপান্তরের সেই প্রধান ধাপ। আমরা কথিত তলাবিহীন ঝুঁড়ির দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছি। প্রধানমন্ত্রী ২০৪১ সালের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর উন্নত বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়েছেন। আশাকরি তার আগেই আমাদের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে। আর এক্ষেত্রে আমাদের তরুণরাই অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে। ইতিমধ্যেই আমাদের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে আমাদের উন্নয়ন বিশ্বের সামনে তুলে ধরতে পেরেছি। আমরা নেপাল, ভুটানের ডিজিটাল রুপান্তরে কাজ করছি। বাংলাদেশের ঘোষনার পরেই বিশ্বের অন্যান্য দেশে ডিজিটাল রুপান্তরের ঘোষনা দিয়েছে। আমাদের তরুণদের মনোবল থাকলেই আমরা আমাদের লক্ষ্যমাত্রায় পৌছাতে পারবো।  ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ মোয়াজ্জম হোসেন মোল্লাহ্ বলেন, ঢাকা কলেজ ঐতিহ্য ও সাফল্যম-িত একটি প্রতিষ্ঠান। যুগের চাহিদায় তথ্যপ্রযুক্তির প্রসারে ইন্টারনেট সপ্তাহের আয়োজনে যুক্ত হতে পেরে আমরা আনন্দিত ও গর্বিত। আগামীতে এ ধরণের আয়োজনে সম্পৃক্ত থাকার কথাও জানান তিনি। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বনমালী ভৌমিক বলেন, সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে একটি প্রধান বিষয় হলো ইন্টারনেট। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ কতোটা এগিয়েছে এবং ইন্টারনেটের প্রসারে সচেতনতা বাড়াতে দ্বিতীয়বারের মতো আয়োজিত হচ্ছে জাতীয় ইন্টারনেট সপ্তাহ। এবারের জাতীয় ইন্টারনেট সপ্তাহে দেশের শীর্ষস্থানীয় প্রায় ২৫টি ই-কমার্স কোম্পানি, মোবাইল অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট প্রতিষ্ঠান, ওয়েব পোর্টাল, ডিভাইস কোম্পানিসহ ইন্টারনেটভিত্তিক পণ্য ও সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। নিজস্ব স্টলে তারা তাদের সফটওয়্যার ও তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর বিভিন্ন সেবা তুলে ধরছেন। এছাড়া দুইদিনে মোট ৪টি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে।

  • নাসার প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশকে ভোট দিন!

    যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা আয়োজিত বিশ্বের সর্ববৃহৎ হ্যাকাথন প্রতিযোগিতা ‘নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৭’ এর চূড়ান্ত পর্বে পিপলস চয়েজ ক্যাটাগরিতে অবস্থান করছে বাংলাদেশের তিনটি প্রকল্প। যা গোটা জাতির জন্যই আনন্দের এবং গর্বের। অনলাইন ভোটের মাধ্যমে প্রকল্পগুলো চূড়ান্ত বিজয়ী নির্বাচন করা হবে। তাই বাংলাদেশকে বিশ্বের সামনে তুলে ধরতে বাংলাদেশি এই তিন প্রকল্পকে ভোট দিতে হবে।

    সম্প্রতি বেসিসের উদ্যোগে বাংলাদেশে আয়োজিত নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৭ প্রতিযোগিতায় আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতার জন্য ১১টি প্রকল্প মনোনীত করা হয়। এর মধ্যে তিনটি প্রকল্প পিপলস চয়েজ ক্যাটাগরিতে স্থান পেয়েছে। এগুলো হলো- আত্ম উন্মেষ (ATTO-UNMESH), জোয়াপ্থ২৫ (JOAPTH25) ও টিম ইংলাইটাস (TEAM ENGLITAS)।

    সংশ্লিষ্টরা জানান, পিপলস চয়েজ ক্যাটাগরিতে উঠে আসা তিনটি প্রকল্প বাংলাদেশের জন্য খুবই আনন্দ এবং গর্বের। অনলাইনে ভোট প্রদানের মাধ্যমে বাংলাদেশি এ প্রকল্পগুলোকে বিজয়ী করার মোক্ষম সময় এখন। তাই সবার প্রতি প্রকল্পটি ভোট প্রদানের আহ্বান করছি। আমাদের আরও ৮টি প্রকল্প নাসার চূড়ান্ত প্রতিযোগিতার তালিকায় রয়েছে। যেগুলো ভোটিং ছাড়াই নাসা সরাসরি বিচার-বিশ্লেষন করবে। আশাকরি সেখান থেকেও আমাদের একাধিক প্রকল্প বিজয়ী হবে।

    পিপলস চয়েজ ক্যাটাগরিতে থাকা প্রকল্পগুলোকে ভোট দিকে প্রথমে https://2017.spaceappschallenge.org/auth/signup সাইটে গিয়ে বিনামূল্যে একটি অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। এরপর সাইটটিতে লগ-ইন করে https://2017.spaceappschallenge.org/vote লিংকে যেতে হবে। সেখান থেকে বাংলাদেশি তিনটি প্রকল্প সার্চ করে প্রত্যোকটিতে ভোট দিতে হবে। একটি অ্যাকাউন্ট থেকে দিনে একবার ভোট দেয়া যাবে। এভাবে আগামী ২১ মে পর্যন্ত প্রতিদিন একবার করে ভোট দেয়া যাবে।

    এবারের প্রতিযোগিতার সহযোগিতায় রয়েছে বেসিস স্টুডেন্টস ফোরাম, বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরাম ও ক্লাউড ক্যাম্প বাংলাদেশ। এছাড়া প্লাটিনাম স্পন্সর হিসেবে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও গোল্ড স্পন্সর হিসেবে রয়েছে প্রিজম ইআরপি। অ্যাকাডেমিক পার্টনার হিসেবে আছে ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনির্ভাসিটি অব বাংলাদেশ।

  • নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জের বাংলাদেশ পর্ব সমাপ্ত

    নানা উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে শেষ হলো যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা আয়োজিত বিশ্বের সর্ববৃহৎ হ্যাকাথন প্রতিযোগিতা ‘নাসা ¯েপস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৭’। রাজধানীর ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ (আইইউবি)-এ বাংলাদেশ পর্বের দুইদিনব্যাপী ফাইনাল হ্যাকাথন রবিবার সন্ধ্যায় বিজয়ীদের পুরস্কৃত করার মাধ্যমে শেষ হয়। গতবারের মতো বাংলাদেশে এই প্রতিযোগিতার আয়োজক হিসেবে ছিলো বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)।

    টানা ৩৬ ঘন্টার চূড়ান্ত হ্যাকাথন শেষে আয়োজিত সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার। বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন আইইউবির স্কুল অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড কম্পিউটার সায়েন্সের ডিন ড. শাহরিয়ার খান। যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন নাসার এএএএস সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি পলিসি ফেলো সোবহানা গুপ্ত।

    অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন বেসিসের পরিচালক ও নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৭ এর যুগ্ম-আহ্বায়ক রিয়াদ এস এ হোসেন, বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ও নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৭ এর যুগ্ম-আহ্বায়ক আরিফুল হাসান অপু, ক্লাউড ক্যাম্প বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ মাহাদী উজ জামান, ডিভাইন আইটি লিমিটেডের চেয়ারম্যান ইকবাল আহমেদ ফখরুল হাসান ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান ও অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর ড. তৌহিদ ভুইয়া।

    এবারের প্রতিযোগিতার বাংলাদেশ পর্বের ঢাকা অঞ্চলে আত্ম-উন্মেষ, ব্ল্যাক স্যুট ও ড্রোন ফর গ্রিন, চট্টগ্রাম অঞ্চলে অ্যারে সিটিজি, নেস্ট ও অগ্রপথিক, রংপুর অঞ্চলে গ্লাসিয়ার্স ও টিম ইংলাইটাস, সিলেট অঞ্চলে বিডিস্টার ওয়েব ডেভেলপার গ্রুপ, বরিশাল অঞ্চলে ইকো-পিএসটিইউ ও জোয়াপথ নামের দলগুলো বিজয়ী হয়। অতিথিরা বিজয়ীদের হাতে ক্রেস্ট ও সকল অংশগ্রহণকারীদের কাছে সনদপত্র তুলে দেন। বিজয়ীরা নাসার চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাবেন। শিগগিরই সেটি ঘোষণা করা হবে।

    এবারের প্রতিযোগিতার সহযোগিতায় ছিলো বেসিস স্টুডেন্টস ফোরাম, বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরাম ও ক্লাউড ক্যাম্প বাংলাদেশ। এছাড়া প্লাটিনাম স্পন্সর হিসেবে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও গোল্ড স্পন্সর হিসেবে ছিলো প্রিজম ইআরপি। অ্যাকাডেমিক পার্টনার হিসেবে ছিলো ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনির্ভাসিটি অব বাংলাদেশ। প্রতিযোগিতা http://spaceappschallenge.org ওয়েবসাইট থেকে বিস্তারিত জানা যাবে।

  • তথ্যপ্রযুক্তির আন্তর্জাতিক বাজার উন্নয়নে বেসিসের কর্মশালা

    আন্তর্জাতিক বাজারে বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি ও তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর সেবার প্রসারে দিনব্যাপী একটি কর্মশালা আয়োজন করেছে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)। শনিবার গাজীপুরের ব্র্যাক সিডিএমে আইসিটি বিজনেস প্রমোশন কাউন্সিল (আইবিপিসি)-এর সহযোগিতায় আয়োজিত এই কর্মশালায় সফটওয়্যার ও আইটি সেবা রপ্তানিকারক ৪০টি কোম্পানির শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

    বেসিসের আন্তর্জাতিক বাজার বিষয়ক স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান টিআইএম নুরুল কবীরের সঞ্চালনায় কর্মশালার শুরুতে এর লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে বক্তব্য রাখেন বেসিসের সহ-সভাপতি এম রাশিদুল হাসান, ফারহানা এ রহমান ও আইবিপিসির নির্বাহী কর্মকর্তা মীর শরিফুল বাশার। উপস্থিত ছিলেন বেসিসের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদ, পরিচালক উত্তম কুমার পাল, বেসিসের সাবেক সভাপতি এস এম কামাল, এ তৌহিদ, রফিকুল ইসলাম রাউলি প্রমুখ।

    বর্তমানে আন্তর্জাতিক বাজারে বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অবস্থা, প্রতিবন্ধকতা, এই খাতের উন্নয়নে করণীয়সহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে জাপান, গ্লোবাল আউটসোর্সিং, ইউরোপ ও আফ্রিকা এবং উত্তর আমেরিকা নিয়ে নিজস্ব কেইস স্টাডি উপস্থাপন করেন যথাক্রমে বেসিসের সাবেক সভাপতি ও ডেটাসফট সিস্টেমস (বিডি) লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বেসিসের সাবেক সভাপতি মাহবুব জামান, রিভ সিস্টেমস লিমিটেডের গ্রুপ সিইও রেজাউল হাসান, দ্য ডেটাবিজ সফটওয়্যার লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রাশেদ কামাল ও গ্রাফিক পিপল লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইমতিয়াজ ইলাহী।

    অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, আমরা আন্তর্জাতিক বাজার প্রসার করতে চাচ্ছি, অথচ আমাদের নিজেদের পণ্য বা সেবার কপিরাইট বা মেধাস্বত্ব সংরক্ষণ নিয়ে ভাবছি না। নিজের পণ্য বা সেবা রক্ষা করা আগে প্রয়োজন। অনেকেই বাজার বিশ্লেষণ না করে অন্যদের দেখাদেখি একই ধরণের পণ্য বা সেবা নিয়ে আন্তর্জাতিক বাজারে প্রবেশে চেষ্টা করে যাচ্ছে। এটাও ঠিক না। একটি বাজারে প্রবেশের আগে অবশ্যই যথাযোগ্য পণ্য বা সেবা নির্বাচন করা, বাজার যাচাই, ক্রেতার ধরণ ও দীর্ঘস্থায়ীত্ব, বিনিয়োগের পরিমাণ, সঠিক ব্যবসায়িক অংশীদার খুঁজে বের করাসহ নানাবিধ অনুশীলন করে নিতে হবে।

    বক্তারা আরও বলেন, আমরা ভালো পণ্য বা সেবা তৈরি করতেই ব্যস্ত থাকি। ডেভেলপমেন্টেই অধিকাংশ বাজেট খরচ করে থাকি। যতো ভালো পণ্য বা সেবা তৈরি করাই হোক না কেনো, তার বিপণন বা প্রচার না হলে ক্রেতা আসবে না। তাই ডেভেলপমেন্টের তুলনায় বিপণনে অন্তত তিনগুন বেশি খরচ করা উচিত। একইসাথে কোম্পানিকে বড় করার ইচ্ছা থাকলে সবচেয়ে বড় চিন্তা করা উচিত। সেই চিন্তাকে বাস্তবে রূপ দিতে মনোবল ও পদক্ষেপ নিতে হবে।

    সরকার ২০২১ সাল নাগাদ ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয়ের যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে তা বাস্তবায়নে স্টার্টআপ কোম্পানিগুলোকে প্রণোদনা দেওয়াসহ নানাবিধ সহায়তা করা, টেকনোলজি ট্রান্সফরমেশন ও আপডেটেড থাকা, আবাসিক এলাকার আইটি কোম্পানির ট্রেড লাইসেন্স নবায়নের সুবিধা, প্রয়োজন অনুযায়ী সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক গড়ে তোলা, দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তোলা, ইন্টারনেটের দাম কমানো, বাজার গবেষণাসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোকপাত করা হয়। কর্মশালায় আলোচিত এবং সুপারিশকৃত বিষয়গুলো বিবেচনায় রেখে একটি কর্মপরিকল্পনার খসড়াও প্রণয়ন করা হয়।

বিনোদন

Back to Top

E-mail : info@dpcnews24.com / dpcnews24@gmail.com

EDITOR & CEO : KAZI FARID AHMED (Genarel Secratry - DHAKA PRESS CLUB)

Search

Back to Top