• আবরারের বাবা-মাকে প্রধানমন্ত্রীর সান্ত্বনা

    প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ গত মঙ্গলবার সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আবরার আহমেদ চৌধুরীর মা-বাবাকে সান্ত্বনা দিয়েছেন। আবরারের বাবা-মা আজ রাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে সাক্ষাৎ করতে যান। প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব সাখাওয়াত মুন বাসসকে বলেন, ‘আবরারের বাবা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আরিফ আহমেদ চৌধুরী ও মা ফরিদা ফাতেমী আজ রাত সোয়া ৮টার দিকে গণভবনে যান এবং সেখানে তারা প্রায় এক ঘণ্টা অবস্থান করেন।’ মুন বলেন, প্রধানমন্ত্রী আবরারের মা-বাবাকে সান্ত্বনা দেন এবং তাদের সন্তানের মর্মান্তিক মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেন। তিনি তার রুহের মাগফেরাতও কামনা করেন। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন ও আবরারের ভাই এসময় উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস (বিইউপি)’র আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র আবরার মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার কাছে নর্দায় সুপ্রভাত পরিবহনের একটি বাসের চাপায় নিহত হন।

  • ঐক্যফ্রন্টের তিন দিনের কর্মসূচি ঘোষণা

    পুনরায় জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দাবিতে তিন দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। শুক্রবার বিকালে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠক শেষে মাহমুদুর রহমান মান্না এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন। কর্মসূচির মধ্যে আছে ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের সকাল ৯টায় সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন। তিনি জানান, নতুন নির্বাচনের দাবি, নিরাপদ সড়ক দাবি, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন, উপজেলা নির্বাচন এবং ডাকসু নির্বাচনে ও ব্যবস্থাপনা, গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি এবং অর্থনৈতিক বৈষম্যের প্রতিবাদে আগামী ৩০ মার্চ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বেলা ১১টায় মানববন্ধন হবে। ৩১ মার্চ বিকেল তিনটায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে স্বাধীনতা দিবসের আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়াও এপ্রিল মাস জুড়ে বিভাগীয় এবং জেলা পর্যায়ে কর্মী সমাবেশের ঘোষণা দেন মান্না। জেএসডির সভাপতি আ স ম আব্দুর রব বলেন, কালো টাকার মালিক, ঋণখেলাপীদের এক পার্সেন্টের বিনিময়ে সমস্ত টাকা মওকুফ করে দেয়ার বিষয়ে সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, আমরা এই বিষয়টিকে প্রত্যাখ্যান করেছি। তিনি আরো বলেন, স্বাধীনতা দিবসকে বিভিন্নভাবে খণ্ডিত করা হচ্ছে। সরকারের বিভিন্ন মহল থেকে বলা হচ্ছে, ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুকে দিয়ে ষড়যন্ত্রকারীরা স্বাধীনতা ঘোষণা করাতে চেয়েছিল। তাহলে কি আমরা ধরে নেব বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতা ঘোষণা করতে চাননি। রব বলেন, আমাদের গণশুনানি যে রিপোর্ট, আমরা চেষ্টা করছি আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে ইংরেজি এবং বাংলায় বই আকারে প্রকাশ করে জনগণের মাঝে বিতরণ করতে। এবং এই গণশুনানির প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে। এর আগে বিকেল সাড়ে চারটায় রাজধানীর পুরানা পল্টনের জামান টাওয়ারে ঐক্যফ্রন্টের কার্যালয়ে এক ঘন্টার বৈঠক করে স্টিয়ারিং কমিটি। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না ড. কামাল হোসেন ও মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বৈঠকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান, গণস্বাস্থ্যের ট্রাস্টি ডাক্তার জাফরুল্লাহ চৌধুরী, জেএসডি সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক রতন, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, শহীদুল্লাহ কায়সার, মো. মমিন উল্লাহ, ডাক্তার জাহিদ, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, কৃষক শ্রমিক জনতালীগের হাবিবুর রহমান খোকা বীর প্রতীক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

  • ঢাকা-১৭ আসনে ভোট করা থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন এরশাদ

    প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে জাতীয়পার্টির উন্মুক্ত আসনের প্রার্থীরা মহাজোটকে সমর্থন করবেন। এছাড়াও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ নিজেও ঢাকা-১৭ আসনে ভোট করা থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন । অসুস্থতা নিয়ে সিঙ্গাপুর যাওয়ার পর সেখান থেকে ফিরে ঢাকার বারিধারায় নিজ বাড়িতে আজ এক সংবাদ সন্মেলনে তিনি এ ঘোষনা দেন। সিঙ্গাপুর থেকে চিকিৎসা নিয়ে গতকাল বুধবার রাতে দেশে ফেরেন এইচ এম এরশাদ।সংবাদ সন্মেলনে এরশাদ বলেন, “আমার বোন শেখ হাসিনাকে পূর্ণ সমর্থন দিচ্ছি। আমি নির্বাচনে বোন শেখ হাসিনাকে সর্বোত সহযোগিতা করব।”একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি মহাজোটের সিদ্ধান্তই মেনে চলবে এবং নিজেও ঢাকা-১৭ আসনে ভোট করা থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন বলে জানান তিনি। এরশাদ এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আকবর হোসেন পাঠান ফারুককে সমর্থন জানিয়েছেন। ঢাকা-১৭ আসন ছেড়ে দেয়ায় সাবেক এই রাষ্ট্রপতি এবার একটি আসনে (রংপুর-৩) নির্বাচন করছেন।এরশাদ বলেন, ১৪৬টি আসনে দলের উন্মুক্ত প্রার্থীরা মহাজোটকে সমর্থন জানাবেন। তবে যেসব জায়গায় জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা জেতার মতো অবস্থায় আছেন, সেখান থেকে প্রার্থী প্রত্যাহার করা হবে না। তবে মহাজোট যে সিদ্ধান্ত নেবে, প্রার্থীদের তা মেনে নেয়ার কথাও বলেন তিনি। জাতীয় পার্টির সব প্রার্থীকে মহাজোটের সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়ার নির্দেশও দেন তিনি।নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন এরশাদ। তিনি বলেন, নির্বাচনের আয়োজন সন্তোষজনক। নির্বাচন কমিশনের ভূমিকাও সন্তোষজনক।জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু সংবাদ সন্মেলনে উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনের পরপরই ঢাকা-১৭ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আকবর হোসেন পাঠান ফারুক জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদের সঙ্গে দেখা করেন।

  • মধুখালীর কামারখালী ও জাহাপুরে আ‘লীগ প্রার্থীর জনসভা

    মধুখালীতে বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় কামারখালী ইউনিয়নের কামারখালী বাজারে এবং রাত ৯টায় জাহাপুর ইউনিয়নের জাহাপুর বাজারে দুটি বিশাল জন সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জনসভা দুটিতে জনসমুদ্রে উপনিত হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন ফরিদপুর-১ আসনের মহাজোট ও আ‘লীগ মনোনিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মনজুর হোসেন বুলবুল। জনসভায় সভাপতিত্ব করেন সংশ্লিষ্ট কামারখালী ও জাহাপুর ইউনিয়নের সভাপতি ও চেয়ারম্যান মো. জাহিদুর রহমান বাবু এবং জাহাপুরে শিক্ষক দশরত দাস। এছাড়া মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টা থেকে বিকাল পর্যন্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন-২০১৮ ফরিদপুর-১ (মধুখালী-বোয়ালমারী-আলফাডাঙ্গা) আসনের মহাজোট ও আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সাবেক সিনিয়র সচিব মনজুর হোসেন বুলবুল কোরকদী ইউনিয়নের বামুন্দি বালিয়াকান্দি বাজার, রামদিয়া স্কুল এলাকায়, খোদাবাসপুর প্রাইমারি স্কুল, উজানদিয়া কাউসার মোল্যার বাড়ির সামনে, বাগবাড়ি মন্দিরের সামনে, কাটাখালী বটতলা, চর-বাসপুর চেয়ারম্যানের বাড়ির সামনে ও আড়পাড়া ইউনিয়নের আড়পাড়া চারখালের মাথায়, আড়পাড়া ১ও ২নং ওয়ার্ডের মন্দিরের সামনে, গড়িয়াদহ, আড়পাড়া মাদ্রাসা এবং আলতু খান জুট মিলের সামনেসহ মোট ১২টি পথসভা ও গসংযোগ করেন। গণসংযোগ ও পথসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ফরিদপুর-১ (মধুখালী-বোয়ালমারী-আলফাডাঙ্গা) আসনের মহাজোট এর নৌকা প্রার্থী মনজুর হোসেন বুলবুল বক্তব্য রাখেন। তিনি সারাদেশের উন্নয়নের ধারাকে অব্যহত রাখতে নৌকায় ভোট প্রার্থনা করেন। ১২টি পথসভা ও দুটি জনসভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি লিয়াকত সিকদার, মধুখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মির্জা মনিরুজ্জামান বাচ্চু, সাধারণ সম্পাদক মো. রেজাউল হক বকু, ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা মনোজ সাহা, উপজেলা আ‘লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. ইলিয়াস মিয়া, অ্যাডভোকেট আলিউজ্জামান খোকন, মো. শহিদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক এম এম বাবুল আক্তার, জেলা পরিষদের সদস্য মির্জা আহসানুজ্জামান আজাউল, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুভাষ রায়, জাহাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোল্যা মো. ইছাক আলী, সাবেক চেয়ারম্যান সামসুল আলম বাচ্চু, আজাদ রহমান টিক্কা, কোরকদী ইউনিয়ন আ‘লীগের সভাপতি মো. আজিজুর রহমান খান, কামারখালী ইউনিয়ন আ‘লীগের সাধারণ সম্পাদক হারুন আর রশীদ দুলাল, জাহাপুর ইউনিয়ন আ‘লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জাহিদুল ইসলাম, আড়পাড়া ইউনিয়ন আ‘লীগের সভাপতি আব্দুস সালাম, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রউফসহ প্রমুখ। এ সকল পথসভা ও জনসভায় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাজি আব্দুস ছালাম মিয়া, হাজি মির্জা আব্দুল করিম, শীবেন্দ্র নাথ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী গোলাম মাঈনুদ্দিন মনির, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক শাহ্ মো. ফারুক হোসেন, প্রচার সম্পাদক মো. আতিয়ার রহমান মিয়া, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক এ কে আজাদ, সহ-দফতর সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক রাজা, সহ-প্রচার সম্পাদক রেজাউল করিম তুহিন, সাবেক চেয়ারম্যান খুরশীদুল আলম, যুবলীগ, মহিলা আ‘লীগ ও মহাজোট নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

  • শান্তি ও উন্নয়নের মার্কাই নৌকা ----রাশেদ খান মেনন

    ঢাকা-৮ আসনের কেন্দ্রীয় ১৪ দল ও মহাজোট মনোনীত প্রার্থী বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি জননেতা কমরেড রাশেদ খান মেনন আজ ২৩ ডিসেম্বর বিকাল ৪টায় পল্টনস্থ পিডাব্লিউডি কলোনীতে নির্বাচনি মত বিনিময় সভায় তিনি বলেন, গত ১০ বছরে এক জন এমপি হিসাবে ঢাকার প্রাণ কেন্দ্রের মতিঝিল, পল্টন, শাহবাগ, শাহজানপুর এলাকায় কোন সন্ত্রাস-চাঁদাবাজকে প্রশ্রয় দেইনি। মাদকের বিরুদ্ধে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছি, স্কুল-কলেজ গুলোতে বহুতল ভবন করে দিয়েছি, শহরকে পরিচ্ছন্ন রাখতে সর্বদা সচেষ্ট থেকেছি, এলাকার রাস্তাঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। ১০ বছর আগে এই এলাকায় সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজদের দৌরাত্বের কারণে জনজীবন অতিষ্ট ছিলো। কার মাধ্যমে এই সন্ত্রাস চাঁদাবাজি হতো তা সবাই জানেন। এখন এই এলাকার মানুষ অনেক শান্তিতে বসবাস করছেন। আবার যদি এই আসনের কোন সন্ত্রাসীকে বসাতে চান তাহলে আমার কথা নাই, তবে এলাকার জনগন যদি আরো ৫টি বছর শান্তিতে ও উন্নয়নের পথে থাকতে চান তাহলে তারা আমাকে বেছে নিতে ভুল করবেন না। এলাকার জন্য এখনো অনেক কাজ করার বাকি আছে যা আগামী ৫ বছরে সমাপ্ত করা সম্ভব। সুতরাং এলাকার শান্তি বজায় রাখতে ও উন্নয়নের অগ্রযাত্রা ধরে রাখতে নৌকাই এক এবং একমাত্র সমাধান। কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের সুপারিন্টেন্ডেন্ট ডা. এ কে এম নিজামুদ্দিনের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ১৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন, নির্বাচনি কেন্দ্র প্রধান রেজাউল করিম, সদস্য সচিব মঞ্জুরুল হক, পিডাব্লিউডি মসজিদের সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম খান সহ অন্যান্য স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।অনুষ্ঠান শেষে মেনন পল্টন ও পুলিশ লাইন এর আবাসিক ও পলওয়েল সুপার মার্কেটের সামনের রাস্তাসহ এলাকায় মিছিল যোগে জনসংযোগের মাধ্যমে লিফলেট বিতরণ করেন।

  • দিনাজপুরে বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবীতে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের মানববন্ধন কর্মসূচী

    দিনাজপুরে কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষিত সারা দেশে বার লাইব্রেরীগুলোতে একযোগে মানববন্ধন কর্মসূচীর আওতায় জেলা আইনজীবী সমিতি সংলগ্ন জেলা জজ কোর্ট প্রাঙ্গণে বিএনপি’র চেয়ারপার্সন, মাদার অব ডেমোক্রেসী, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ফরমায়েশী দন্ডাদেশ প্রদান করার প্রতিবাদে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম দিনাজপুর ইউনিট আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন গত ১ নভেম্বর বৃহস্পতিবার কর্মসূচী পালিত হয়। জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম দিনাজপুর জেলা শাখার সভাপতি এ্যাডঃ আব্দুল হালিম এর সভাপতিত্বে মানবন্ধন কর্মসূচীর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সহ-সভাপতি এ্যাডঃ আনিসুর রহমান চৌধুরী, মুসলিম লীগ দিনাজপুর জেলা শাখার সভাপতি এ্যাডঃ আব্দুল আলী চৌধুরী। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন এ্যাডঃ এমাম আলী, এ্যাডঃ মিনহাজুল আবেদীন ফারুক, এ্যাডঃ আব্দুল বাকী, এ্যাডঃ আনোয়ারুল আজীম খোকন, এ্যাডঃ মাহাফুজুর রহমান বিপুল, এ্যাডঃ মাহফুজ আলী চৌধুরী, এ্যাডঃ একরামুল আমিন, এ্যাড. রইস উদ্দিন, এ্যাড. খন্দকার মাসুম, এ্যাড. রেজাউল ইসলাম, এ্যাডদ সাইফুল ইসলাম (২), এ্যাড. আজিদুর রহমান, এ্যাড. মশিউর রহমান, এ্যাড. রাশেদুল ইসলাম মানিক, এ্যাডঃ মাসুদ অবায়েদুল্লাহ তারেক, এ্যাডঃ মোঃ আলী আশরাফ রঞ্জু, এ্যাডঃ ফিরোজ ইব্রাহিম, এ্যাডঃ ইউসুফ আলী (২)। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ মোঃ আইনুল হক। বক্তারা বলেন, জিয়া চ্যারিটেবল ট্র্যাস্ট দুর্নীতি মামালায় বিএনপির চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে একতরফা রায় দিয়ে সাজা দেয়া হয়েছে। হাই কোর্টে আবেদনটি খারিজ হওয়ার পর আমরা ভেবেছিলাম সর্বোচ্চ আদালতে তিনি প্রতকার পাবেন। কিন্তু তিনি কোন প্রতিকার পান নি। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিরপেক্ষ করতে হলে জাতীয় যুক্তফ্রন্টের ৭ দফা দাবি মেনে নিন।

  • মধুখালীতে বিএনপির কর্মি সমাবেশ

    ফরিদপুরের মধুখালীতে উপজেলা পৌর বিএনপির যৌথ আয়োজনে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহরের দাবীতে কর্মি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।উপজেলা বিএনপির সভাপতি মোঃ রাকিব হোসেন চৌধুরী ইরানের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সাধারন সম্পাদক বাবলূ কুমার রায়ের সঞ্চালনায় বেলা সাড়ে ১১ টায় মধুখালী প্রেসক্লাব চত্ত্বরে অনুষ্ঠিত কর্মি সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ফরিদপুর-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা শাহমোঃ আবু জাফর। কর্মি সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক মোঃ আবুল কাশেম আবুল,পৌর বিএনপির সভাপতি শাহাবুদ্দিন আহম্মদ সতেজ, সাধারন সম্পাদক এ্যাড.গোলাম মনসুর নান্নু, মোঃ মিরাজুল ইসলাম মিল্টন,উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোঃ শরিফুল ইসলাম ফকির, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ হায়দার আলী মোল্যা,মোঃ ইলিয়াস বিশ্বাস জাপান,মোঃ ফরিদুল ইসলাম,মোঃ মিজানুর রহমান,খন্দকার ওবায়দুর রহমান, মোঃ জাহাঙ্গীর আলম,মোঃ লিয়াকত শেখ,এস এম মোক্তার হোসেন,মোঃ ওমর ফারুক ও গোলাম মহিমসহ প্রমুখ। বক্তাগন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করে একাদশ জাতীয় নির্বাচনের দাবী করেন।

  • দেশের সকল তরুন-যুবদের প্রতি জাতীয় যুব দিবসের শুভেচ্ছা -----যুব মৈত্রী

     ১ নভেম্বর-২০১৮ জাতীয় যুব দিবস। এই দিবসে বাংলাদেশ যুব মৈত্রীর কেন্দ্রিয় সভাপতি সাব্বাহ আলী খান কলিন্স ও সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) মোতাসিম বিল্লাহ সানি এক যুক্ত বিবৃতিতে জানিয়েছেন যে, দেশের উন্নায়নে অবশ্যই সাধারণ যুবদের অংশগ্রহণ জরুরী। আমাদের দেশের মোট জনসংখ্যায় অর্ধেকের বেশী তরুন-যুব, যার আবার অধিকাংশ বেকার ও কর্মহীন যা অবশ্যই একটা রাষ্টের জন্য কাম্য হতে পারেনা। আমরা বিশ^াস করি সরকার প্রধানের আন্তরিক ইচ্ছা থাকলেও অসাধু আমলা, রাজনিতীক, ব্যাবসায়ীরা কৌশলে বিভিন্ন সংকট জিয়িয়ে রেখেছে। আমরা দেখছি হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যাংক ও শেয়ার মার্কেট থেকে লুট হয়েছে, আবার ঋন খেলাপীর সংখ্যাও দিন দিন বাড়ছে। নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের যুবদের উদ্দেশ্যে অসৎ এবং লুটেরাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকতে হবে এবং লুটের টাকা ও খেলাপী ঋন আদায় করে বেকার ভাতা অবলম্বে চালু করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। নেতৃদ্বয়, দেশের সকল তরুন-যুবদের যুব দিবসের শুভেচ্ছা এবং ন্যায্যতা, সমতা, বঞ্চনার বিরুদ্ধে অধিকার আদায়ে ঐক্যবদ্ধ থাকার জন্য আহ্বান জানান।

  • খালেদা জিয়া-তারেক’কে বাঁচাতেই ড. কামালের ঐক্যফ্রন্ট : ইনু

    তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক রহমানকে বাঁচাতেই ড. কামালের ঐক্যফ্রন্ট’। ড. কামালের হাত ধরে বিএনপি জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট করে দেশকে অশান্ত করতে চায় উল্লেখ করে তিনি বলেন, ঐক্যফ্রন্টের ঘরে বিএনপি-জামাত ঢুকে পড়েছে। কিন্তু মানুষ হত্যার রাজনীতি করে ক্ষমতায় আসা যায় না। জাসদের সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী ইনু আজ রোববার বিকেলে বগুড়ার নন্দীগ্রাম মনসুর হোসেন ডিগ্রী কলেজ মাঠে উপজেলা জাসদ আয়োজিত এক জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব বথা বলেন। সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, জাসদের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নাদের চৌধুরী ও জেলা জাসদের সভাপতি একেএম রেজাউল করিম তানসেন এমপি। তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘তারেক রহমান হাজার-হাজার কোটি টাকা বিদেশ পাচার করেছে। তাই এদেরে জনগণ তাদের ক্ষমতায় দেখতে চায় না।’ তিনি বলেন, ‘তারেক রহমান চারদলীয় জোট সরকারের সময় নিরীহ মানুষ হত্যা করেছে। জামাত-রাজাকারদের কাছে খালেদা জিয়া জিম্মি। একারণে তারা এদেশকে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদী দেশ বানাতে চায়।’ সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ রুখতে শেখ হাসিনার সরকারের বিকল্প নেই বলে ইনু উল্লেখ করেন। উপজেলা জাসদের সভাপতি কামরুজ্জামান কামরুলের সভাপতিত্বে এ সভায় কেন্দ্রীয় জাসদের যুগ্ম-সম্পাদক রোকুনুজ্জামান রুকন, উপজেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান রুস্তম, দপ্তর সম্পাদক ফেরদৌস আলী, প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

  • ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ড. কামাল হোসেন আপনি একজন খুনি-সন্ত্রাসী তারেক রহমানের নেতৃত্ব মেনে নিয়েছেন

    আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপির মতো সন্ত্রাসী ও খুনিদের সঙ্গে হাত মেলানোর অপরাধে জনগণ ড. কামালের কঠিন বিচার করবে। তিনি আজ রোববার বিকেলে রাজধানীর পল্লবী থানার হারুন মোল্লা ঈদগাহে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে দলের গণসংযোগ কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘হায়রে ড. কামাল হোসেন, আপনি এখন কোথায় গেলেন। আপনি একজন খুনি-সন্ত্রাসী তারেক রহমানের নেতৃত্ব মেনে নিয়েছেন, সাম্প্রদায়িক শক্তির সাথে হাত মিলিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে নেতা ছিলেন আপনি, আর আজকে তারেক রহমানের নেতৃত্ব মেনে নিয়েছেন। এটা লজ্জা, লজ্জা, লজ্জা।’ তিনি বলেন, ‘ড. কামাল হোসেন সাহেব আপনি এটর্নি জেনারেলকে নোংরা ভাষায় কথা বলতে দ্বিধা বোধ করেন নি। আমরা আপনাকে নোংরা ভাষায় কথা বলবো না। তবে আপনাকে স্মরণ করিয়ে দিতে চাই, আপনি বঙ্গবন্ধুর সহকর্মী হয়ে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন।’ ক্ষমতায় গেলে কঠিন বিচার হবে- ড. কামালের এই বক্তব্যের জবাবে ওবাদুল কাদের বলেন, ‘গতকাল চট্টগ্রামের সমাবেশে আপনি বলেছেন ক্ষমতায় গেলে কঠিন বিচার হবে। ড. কামাল সাহেব আপনাকে মনে রাখতে হবে, বঙ্গবন্ধুর সহকর্মী হয়ে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের যারা পুরস্কার দিয়েছে, পুনর্বাসিত করেছে- তাদের সঙ্গে আপনি হাত মিলিয়েছেন। সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলাও বঙ্গবন্ধু কন্যাকে হত্যার চেষ্টা করেছিল যারা, যুদ্ধাপরাধের পার্টনার হিসেবে তাদের রাজনীতিতে সঙ্গে নিয়েছে, কানাডার ফেডারেল আদালত বিএনপিকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা করেছে, তাদের সঙ্গে আপনি হাত মিলিয়েছেন। তিনি বলেন, সেই বিএনপির সঙ্গে আপনার হাত মিলিয়ে যে অপরাধ করেছেন সেই অপরাধে বাংলাদেশের জনগণ আপনাকে কঠিন শাস্তি দেবে, জনগণ আপনাকে ক্ষমা করবে নাা। তিনি আরো বলেন, “আপনারা ঐক্য করেছেন ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য না, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে হটানোর জন্য। শেখ হাসিনাকে হটানোই আপনাদের প্রাইম টার্গেট। আপনাদের সাত দফা নির্বাচনের জন্য নয়, নির্বাচন বানচালের জন্য।

  • জননেতা রাশেদ খান মেনন-এর ৭৫তম জন্মদিন পালিত

    বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি জননেতা কমরেড রাশেদ খান মেনন এমপি’র আজ জন্মদিন। তাঁর জন্মদিন উপলক্ষে আজ সকালে তাঁর বাসভবনে ও পার্টি কার্যালয়ে বিভিন্ন সংগঠন ও সাধারণ মানুষ তাকে শুভেচ্ছা জানান। এসময় বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড ফজলে হোসেন বাদশার নেতৃত্বে পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ, জাসদের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান এমপির নেতৃত্বে জাসদ নেতৃবৃন্দ, ঢাকা মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টি, নারী মুক্তি সংসদ, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন, খেতমজুর ইউনিয়ন, জাতীয় কৃষক সমিতি, ছাত্রমৈত্রী, যুব লীগ, যুব মৈত্রী, গার্হস্থ্য নারী শ্রমিক ইউনিয়ন, সমাজ সেবা অধিদপ্তর, সমাজ সেবা অধিদপ্তর অফিসার্স কল্যাণ সমিতি, সোনার বাংলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়ন, রুপসী বাংলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়ন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দৃষ্টিহীন ছাত্র কল্যাণ সমিতি, সমাজ কল্যাণ পরিষদ, ফিজিও থেরাপী এসোসিয়েশন, কেন্দ্রীয় খেলাঘর আসর, এশিয়ান ওমেন এসোসিয়েশন, রমনা থানা আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংগঠন সমূহের নেতৃবৃন্দ ও বুদ্ধিজীবী এবং ঢাকা-৮ আসনের সর্বস্তরের জনসাধারণ তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। তারা কমরেড রাশেদ খান মেননের সুস্থ জীবন ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন।  সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত বাংলাদেশ যুব মৈত্রী ও ছাত্র মৈত্রীর যৌথ আয়োজনে দ্বিতীয় দফায় শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানের কর্মসূচি রয়েছে।

  • ফিলিস্তিন থেকে মার্কিন ইজরাইয়েল আধিপত্যবাদ ও দখলদারকে বিতাড়িত করতে হবে ... ফজলে হোসেন বাদশা এমপি

    ফিলিস্তিনী জনগণের উপর ইজরাইয়েল সৈন্যদের নির্বিচারে হত্যাযজ্ঞ ও নিপীড়ন-নির্যাতনের প্রতিবাদে আজ ১৫ মে মঙ্গলবার বিকেল ৪.৩০ মিনিটে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির উদ্যোগে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড ফজলে হোসেন বাদশা এমপি বলেন, ‘জেরুজালেম ফিলিস্তিনের রাজধানী ও তাদের আবাস ভূমি। তিনি জেরুজালেমে মার্কিন দুতাবাস স্থাপনের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনী জনগণের ন্যায় সংগত ও শান্তিপূর্ণ সমাবেশের উপর মার্কিন মদদপুষ্ট ইজরাইয়েলী সেনাবাহিনীর বর্বরোচিত হামলায় শিশু ও কিশোরসহ ৫৩ জন নিহত হওয়ায় তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়ে বলেন এটা বর্বর গণহত্যা। দেশে দেশে মার্কিন সা¤্রজ্যবাদের আধিপত্য ও দখলদারিত্ব নীতি সারা বিশ্বকে অশান্ত করে তুলেছে। তিনি আরো বলেন, আমাদের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় ফিলিস্তিনের মহান নেতা ইয়াসির আরাফাত আমাদের পক্ষে দাঁড়িয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে এর ন্যায্যতা তুলে ধরেছিলেন।  তিনি আরো বলেন এভাবে সা¤্রাজ্যবাদী দেশগুলো ছোট ছোট দেশগুলো দখল করলে ও নির্যাতন চালালে পৃথিবী ভারসাম্যহীন হবে। ফিলিস্তিনে গণহত্যার দায়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে ইজরাইয়েল ও আমেরিকার বিচার হওয়া দরকার। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে জেরুজালেম থেকে মার্কিন দূতাবাস প্রত্যাহার ও দখলদার মুক্ত করার জোর দাবি জানান। সমাবেশ শেষে ইজরাইয়েলী পতাকা আগুন দিয়ে পোড়ানো হয়। ঢাকা মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি আবুল হোসাইনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ যুব মৈত্রীর সভাপতি সাব্বাহ আলী খান কলিন্স। সভা পরিচালনা করেন ঢাকা মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক কিশোর রায়। উপস্থিত ছিলেন পলিটব্যুরো সদস্য কমরেড আনিসুর রহমান মল্লিক, কমরেড অধ্যাপক সুশান্ত দাস, কমরেড মাহমুদুল হাসান মানিক, কমরেড কামরূল আহসান, কেন্দ্রীয় নেতা কমরেড মোস্তফা আলমগীর রতন, ও ঢাকা মহানগরের নেতৃবৃন্দ।

  • বৃটিশ জেল কোড পরিবর্তন করে কারাগারকে সংশোধনাগারে পরিণত করতে হবে ... ফজলে হোসেন বাদশা

    বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি ঢাকা মহানগরের উদ্যোগে ৬৮তম খাপড়া ওয়ার্ড দিবসের আলোচনা সভা ৩০ তোপখানা রোডস্থ পার্টির কার্যালয়ের নিচ তলায় শহীদ বীরদের স্মরণে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড ফজলে হোসেন বাদশা এমপি, পলিটব্যুরো সদস্য কমরেড বিমল বিশ্বাস, কমরেড অধ্যাপক সুশান্ত দাস, কমরেড মাহমুদুল হাসান মানিক, কমরেড হাজেরা সুলতানা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক কমরেড মেজবাহ কামাল, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড মোস্তফা আলমগীর রতন। সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর সভাপতি কমরেড আবুল হোসাইন। সভা পরিচালনা করেন ঢাকা মহানগর সাধারণ সম্পাদক কমরেড কিশোর রায়।  প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কমরেড বাদশা বলেন, বৃটিশ জেল কোড পরিবর্তন করে কারাগারকে সংশোধনাগারে পরিণত করতে হবে। কারাগার কোন নির্যাতনের জায়গা না। তিনি বলেন, ১৯৫০ সালের ২৪ এপ্রিল রাজশাহী জেলের অভ্যন্তরে খাপড়া ওয়ার্ডে ইতিহাসের জঘন্যতম হত্যাকা- সংঘটিত হয়। নিরস্ত্র ও অসহায় কমিউনিস্ট রাজবন্দিদের উপর পাকিস্তানী শাসকদের আদেশ ও বৃটিশ জেল সুপার বিলের নির্দেশে নির্বিচারে গুলিবর্ষণ করা হয়। এতে ৭ জন শহীদ হন ও ৩৯ জন মারাত্মকভাবে আহত হন। যারা সারাজীবন সেই ক্ষত নিয়ে বেঁচেছিলেন।বক্তারা আরও বলেন, খাপড়া ওয়ার্ড শহীদদের আত্মদান আমাদের চেতনাকে শানিত করেছিল। অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক ও সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনকে এগিয়ে নিতে পারলে শহীদদের প্রতি যথাযথ মর্যাদা দেখানো হবে।

  • দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য আগামী নির্বাচন অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ : মেনন

    সমাজকল্যাণ মন্ত্রী ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেছেন, দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য আগামী নির্বাচন অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। তিনি শুক্রবার, বিকেলে কক্সবাজার জেলার চকোরিয়া বিজয় মঞ্চে ওয়ার্কার্স পার্টির কক্সবাজার জেলা শাখার বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। মেনন বলেন, ‘আর কয়েকমাস পর আমাদের যে জাতীয় নির্বাচন হতে যাচ্ছে তা দেশের ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বিষয়। দেশের উন্নয়নের চাকা সচল থাকবে নাকি চাকা ডুবে যাবে তা নির্ভর করবে এই নির্বাচনে জনগণের প্রত্যক্ষ রায়ের ওপর। দেশের মানুষকে এই নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হবে যে আগামী দিনে তারা কেমন বাংলাদেশ দেখতে চায় ।’ সমাজকল্যাণ মন্ত্রী বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের নানা দিকের সমালোচনা করেন। তিনি তৎকালীন সময়কে দেশব্যাপী জঙ্গিবাদের উত্থান, অব্যাবস্থাপনা, নৈরাজ্য ও ভীতিকর সময় হিসেবে অভিহিত করেন। মেনন বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় রাজধানীর এক হাওয়া ভবনের ইশারায় গোটা দেশের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রিত হতো। হাওয়া ভবনের ইশারায় দেশব্যাপী জঙ্গিবাদের ব্যাপক উত্থানের পাশাপাশি ঘুষ, দুর্নীতির নিয়ন্ত্রণ করতো বেগম জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান। সুতরাং দেশকে যদি আবারো সেই বিভীষিকাময় সংকটে ফেলতে না চান তাহলে আপনাদের সকলকেই ঐক্যবদ্ধভাবে বর্তমান সরকারকে বেছে নিতে হবে।’ বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কক্সবাজার জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

  • মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের মায়ের মৃত্যুতে এলডিপি’র শোক

    মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের মা ফাতেমা আমিনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরীক দল লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি- এলডিপি’র সভাপতি ড. কর্নেল (অবঃ) অলি আহমদ বীরবিক্রম, মহাসচিব ড.রেদোয়ান আহমেদ এক বিবৃতিতে বলেন, রতœাগর্ভা মা হিসেবে ফাতেমা আমিন সকলের কাছে অত্যন্ত শ্রদ্ধার পাত্র ছিলেন। নেতৃবৃন্দ তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকা সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে মারা যান তিনি। ফুসফুস, কিডনিসহ বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন সমস্যার কারণে বেশ কিছুদিন ধরে ফাতিমা আমিন হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। ফাতিমা আমিনের স্বামী প্রয়াত মির্জা রুহুল আমিন আশির দশকে এরশাদ সরকারের মন্ত্রী ছিলেন। এছাড়া তিনি বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমানের শাশুড়ি।

E-mail : info@dpcnews24.com / dpcnews24@gmail.com

EDITOR & CEO : KAZI FARID AHMED (Genarel Secratry - DHAKA PRESS CLUB)

Search

Back to Top