Deprecated: mysql_connect(): The mysql extension is deprecated and will be removed in the future: use mysqli or PDO instead in /home/dpcnews/public_html/dbconnection.php on line 9
দেশের রাজনীতি নির্বাচনমুখী হয়ে উঠেছে

নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে রাষ্ট্রপতির ধারাবাহিক সংলাপ, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ডে রাজনৈতিক অঙ্গনে পুরনো প্রশ্নই নতুন করে দেখা দিয়েছে। দেশের রাজনীতি কি নির্বাচনমুখী হয়ে উঠেছে?

প্রশ্নটি উঠেছে মূলত গত ২২ ও ২৩ অক্টোবর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনের পর থেকেই। জাতীয় সম্মেলনে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলীয় নেতাকর্মীদের নির্বাচনমুখী হওয়ার নির্দেশ দেন।

প্রশ্নটি নতুন করে মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে নেদারল্যান্ডস সফরের পূর্বে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা নিজ রাজনৈতিক কার্যালয়ে যাওয়া ও দলীয় নেতাকর্মীদের নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে বলার মধ্য দিয়ে।

ওই সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আগামী নির্বাচনের জন্য আওয়ামী লীগের ইশতেহার তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। দলের প্রত্যেক নেতাকর্মীকে এজন্য প্রস্তুতি নিতে হবে। গত তিন বছরে আওয়ামী লীগের অনেক অর্জন আছে। সেগুলো জনসাধারণের কাছে তুলে ধরতে হবে। পাশাপাশি জনসম্পৃক্ততা বাড়ানোরও আহ্বান জানান তিনি।

ঠিক এর পরদিনই দলের দ্বিতীয় নীতিনির্ধারণী ব্যক্তি(সাধারণ সম্পাদক)ওবায়দুল কাদের ঘোষণা করেন আগামী তিন মাসের মধ্যে জাতীয় নির্বাচনের ইশতেহার তৈরি হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামী লীগ শীর্ষ পর্যায়ের কয়েকজন নেতা জানান, আগাম নির্বাচন হবে কিনা জানি না, তবে প্রস্তুতি শুরু করেছি। ইশতেহারের কাজ শুরু হয়েছে, নেতাকর্মীদের সে অনুযায়ী নির্দেশনা পাঠানো হচ্ছে।

এত আগে ইশতেহার ও কর্মীদের নির্দেশনা কেন-এমন প্রশ্নে আওয়ামী লীগের ওই নীতিনির্ধারকরা বলেন, একটি নির্বাচন পার করেই আরেকটির প্রস্তুতি নেয়া হয়। এটা তারই অংশ। তবে এ নিয়ে কেউ আগাম নির্বাচনের ‘খোয়াব’ দেখলে কিছু করার নেই।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আবদুর রাজ্জাক বলেন, শেখ হাসিনা উন্নয়নের যে রূপকল্প দিয়েছেন তারই ধারাবাহিকতা রক্ষার্থে এ সাংগঠনিক চর্চা। একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে আবারও ক্ষমতায় এসে সে ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে হবে। অর্থাৎ আমরা একটি স্বচ্ছ নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসার চিন্তা করছি।

তিনি আরও বলেন, গণতান্ত্রিক চর্চার লক্ষে জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার কথা ভেবে দলটি সর্বদাই নানা পর্যবেক্ষণের মধ্য দিয়ে অগ্রসর হয়। এবারও তাই হচ্ছে। বিগত দিনে যা হয়েছে এবারও তা করতে হবে এমন কোনো কথা নেই। গতবার আর এবারের বাস্তবতাও নিশ্চয়ই এক নয়।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, তফসিল ঘোষণার আগে নির্বাচনী প্রচারণা করা যায় না। তাই একটি স্বচ্ছ নির্বাচনের প্রস্তুতির জন্য দলকে নির্বাচনমুখী করছি।

রাজনৈতিক বিশ্লেষক সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) সম্পাদক অধ্যাপক বদিউল আলম মজুমদার বলেন, আওয়ামী লীগ নেতারা মনে করেন তাদের দল সবচেয়ে জনপ্রিয়। এটা জেনেও কেন দলটি এত আগে নির্বাচনীমুখী হচ্ছে তা বোধগম্য নয়। তবে জনগণের সামনে উন্নয়নের যে বড় দৃশ্য দেখানো হবে তা হচ্ছে পদ্মা সেতু।এটা যেহেতু অতি দ্রুত হচ্ছে না সুতরাং খুব কাছাকাছি সময়ে নির্বাচনের কথা নয়। তবে এ সরকার মেয়াদ শেষ করতে পারবে কি না তাও স্পষ্ট নয়।

স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ড. তোফায়েল আহমেদ বলেন, সরকার তো নিজেদের মহাপরাক্রমশালী দাবি করে। জনপ্রিয়তাও অনেক বলে মনে করে। তাহলে এত আগে কেনো নির্বাচনী প্রস্তুতি, এ নিয়ে প্রশ্ন তো থাকেই। তবে আগে ইসি হোক পরে কথা হবে।

Author

ID NO :

Share Button

Comment Following News

E-mail : info@dpcnews24.com / dpcnews24@gmail.com

EDITOR & CEO : KAZI FARID AHMED (Genarel Secratry - DHAKA PRESS CLUB)

Search

Back to Top