বুধবার, মে ১৯, ২০২১
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img
বুধবার, মে ১৯, ২০২১
Homeঅর্থনীতিক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের এসএমই ফাউন্ডেশনের ঋণের আবেদন আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে

ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের এসএমই ফাউন্ডেশনের ঋণের আবেদন আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে

সরকারের প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় এসএমই ফাউন্ডেশনের ঋণের জন্য ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের আবেদন আগামীকাল সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে।
প্রাথমিকভাবে ব্র্যাক ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, বেসিক ব্যাংক এবং অর্থ-লগ্নিকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইডিএলসি ফাইন্যান্সে আবেদন গ্রহণ করা হবে। এছাড়াও,এসএমই ফাউন্ডেশনের সাথে চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে এমন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতেও পরবর্তীতে আবেদন করা যাবে।
আজ রোববার অনলাইনে নারী-উদ্যোক্তা সংশ্লিষ্ট অ্যাসোসিয়েশন ও চেম্বার নেতৃবৃন্দ এবং দেশের শীর্ষ নারী-উদ্যোক্তাদের সাথে এসএমই ফাউন্ডেশনের এক মতবিনিময় সভায় এ তথ্য জানানো হয়।
এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ড. মোঃ মফিজুর রহমান এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।
ফাউন্ডেশনের মহাব্যবস্থাপক ফারজানা খানের সঞ্চালনায় এ মতবিনিময় সভায় অন্যান্যের মধ্যে ফাউন্ডেশনের মহাব্যবস্থাপক নাজিম হাসান সাত্তারও বক্তৃতা করেন।
ড. মোঃ মফিজুর রহমান জানান, প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় এসএমই ফাউন্ডেশনের জন্য বরাদ্দকৃত অর্থের ২৫ শতাংশেরও বেশী অর্থ নারী-উদ্যোক্তাদের মাঝে বিতরণ করার লক্ষ্যমাত্রা থাকলেও ফাউন্ডেশন আশা করছে ৫০ শতাংশের বেশী ঋণ নারী উদ্যোক্তাদের মাঝে বিতরণ করা সম্ভব হবে। তিনি বলেন, এসএমই ফাউন্ডেশন করোনাভাইরাসের (কোাভিড-১৯) সংক্রমণ প্রতিরোধজনিত বিষয়ে করনীয় পরিস্থিতিতে ‘অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার কার্যক্রম ত্বরান্বিত করা এবং পল্লী এলাকার প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে সরকারের দ্বিতীয় দফা প্রণোদনার আওতায় চলতি অর্থবছরে মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি (সিএমএসএমই) উদ্যোক্তাদের ৩০০ কোটি টাকা ঋণ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।
ড. মফিজুর রহমান বলেন, ,বরাদ্দকৃত ঋণের এক তৃতীয়াংশ অর্থাৎ ১শ’ কোটি টাকা চলতি অর্থবছরে এবং বাকী ২০০ কোটি টাকা আগামী অর্থবছরে বিতরণ করা হবে। এসএমই ফাউন্ডেশনের এমডি দৃঢ়তার সাথে বলেন, ফাউন্ডেশনের লক্ষ্যই হচ্ছে, যে কোন মূল্যে বেশি সংখ্যক নারী-উদ্যোক্তার ঋণ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করা।
মতবিনিময় সভায় জানানো হয়, প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় উদ্যোক্তারা ৪ শতাংশ সুদ হারে ঋণ পাবেন। গ্রাহক পর্যায়ে ঋণের পরিমাণ হবে সর্বনি¤œ ১ লাখ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৭৫ লাখ টাকা। ব্যাংকার ও গ্রাহকের সম্পর্কের ভিত্তিতে সর্বোচ্চ ২৪টি সমান মাসিক কিস্তিতে ঋণ পরিশোধ করা যাবে।

অন্যান্য সংবাদ
- Advertisment -spot_img
bn Bengali
X
%d bloggers like this: